স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর : উত্তর ২৪ পরগনার নোয়াপাড়ার দলছুট বিধায়ক সুনীল সিং ফের তৃণমূল কংগ্রেসে ফিরতে চাইছেন। এমনটাই বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন উত্তর ২৪ পরগনা জেলা তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি তথা রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। যা নিয়ে চরমে উঠছে রাজনৈতিক তরজা। যদিও রাজ্যের মন্ত্রীর এহেন দাবি সম্পূর্ণ খারিজ করে দিয়েছেন সুনীল সিং।

এই প্রসঙ্গে নোয়াপাড়ার বিজেপি বিধায়ক সুনীল সিং বলেন, “উনি কি বলছেন জানি না । তবে উনি বিজেপিতে যোগ দেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করে ছিলেন আমার কাছে। একমাস আগে আমাকে বলেছিল অর্জুন সিংয়ের সঙ্গে বসাতে। কিন্তু অর্জুন সিং বলেছেন, গরু চোর, ছাগল চোরকে বিজেপি নেবে না ।”

শুধু সুনীল সিং নিজে নয়, এই প্রসঙ্গে মুখ খুলেছেন বারাকপুর লোকসভার সাংসদ অর্জুন সিংও। তিনি পালটা বলেন, “ও বাজে কথা বলছে, সুনীল সিংয়ের মাধ্যমে ও নিজেই কথা বলতে চেয়েছিল। কিন্তু ওকে দল নেবে না।

লোকসভা ভোটের পর থেকেই উত্তপ্ত উত্তর ২৪ পরগণার। জেলার নৈহাটি, হালিশহর, ভাটপাড়া সহ একাধিক এলাকা এখনও উত্তপ্ত। মাঝে মধ্যে বোমাবাজির শব্দে ঘুম ভেঙে যায় সেখানকার মানুষের। দোষারোপ চলে বিজেপি-তৃণমূলের মধ্যে। এই অবস্থায় নৈহাটি শহরে বিশাল শান্তি মিছিল বার করে তৃণমূল। সেখানে অংশ নিয়ে সুনীল সিং তৃণমূলে ফের ফিরে আসতে চলেছে বলে বিস্ফোরক দাবি করেছেন জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক।

তিনি আরও বলেন, মাত্র ২৪ ঘণ্টা আগে নৈহাটি পুরসভার দলছুট ১০ জন কাউন্সিলর ঘরওয়াপসী করেছেন। সুনীল সিংও তৃণমূলে ফিরে আসার জন্যে যোগযোগ করছে বলে দাবি করেন। তৃণমূলে ফিরে আসা কাউন্সিলরদের নিয়েই নৈহাটি শহরে মিছিল করেন জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক এবং নৈহাটির তৃণমূল বিধায়ক পার্থ ভৌমিক। খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক আরও বলেন, “অর্জুনের ভগ্নিপতি সুনীল ওর বাড়িতে লিখে রেখেছে একবার ডাকলেই ফিরে যাই। ও চেষ্টা করছে তৃণমূল কংগ্রেসে ফেরার। শুধু তাই নয়, তৃণমূলে ফিরতে চেয়ে সুনীল সিং অনেকের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে বলেও দাবি করেন তিনি। বিজেপি ওকে টিকিট দেবে না বলেই তৃণমূলে সে ফের ফিরতে চাইছে বলেও বিস্ফোরক মন্তব্য করেন রাজ্যের শাসকদলের জেলা সভাপতি।

জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক আরও বলেন, বিজেপি করতে গেলে আগে আরএসএস করতে হবে। অর্জুন নিজের আর ছেলের টিকিট ঠিক বের করে নিয়েছে। ওর টিকিট কে দেবে? ও এখন ফের তৃণমূল কংগ্রেসে আসতে চাইছে । আমরা হালিশহর, কাঁচরাপাড়া, নৈহাটি পুরসভা নিয়েছি । এবার গারুলিয়াও নেব। আর পুজোর পর ভাটপাড়া পুরসভাও তৃণমূলের দখলে চলে আসবে বলে মন্তব্য তাঁর। নির্দিষ্ট পদ্ধতি মেনে ফের অনাস্থা আনব আমরা। অর্জুন কত ক্ষমতাবান দেখা যাবে ।”

যদিও রাজ্যের মন্ত্রীর এহেন হুশিয়ারি শুধুমাত্র ফাঁকা আওয়াজ বলে পালটা মন্তব্য করেছেন অর্জুন সিং।