ত্রিনিদাদ: মঙ্গলবার ৩২-এ পা দিয়েছেন তিনি। আর ৩২তম জন্মদিনে ফ্র্যাঞ্চাইজি টিম নাইট রাইডার্সের প্রতি সীমাহীন আবেগ ঝরে পড়ল উইন্ডিজ মিস্ট্রি স্পিনার সুনীল নারিনের গলায়। জানালেন প্রত্যেক বছর যখন আইপিএল খেলতে ভারতের উদ্দেশ্যে রওনা দেন তখন মনে হয় যেন তাঁর দ্বিতীয় ঘরে ফিরছেন তিনি।

কলকাতা নাইট রাইডার্সের অফিসিয়াল টুইটার হ্যান্ডেলে ফ্র্যাঞ্চাইজির প্রতি তাঁর ভালোবাসাকে এভাবেই ব্যক্ত করলেন নারিন। নাইটদের সঙ্গে একাত্ম হয়ে যাওয়া নারিন বলছেন যে টুর্নামেন্টেই নাইটরা খেলুক না কেন, আমি ওদের হয়েই খেলতে চাই। উল্লেখ্য কলকাতা নাইট রাইডার্সের পাশাপাশি দেশের মাটিতে ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়র লিগেও নাইট ফ্র্যাঞ্চাইজি ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্সের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেন নারিন। জন্মদিনে তাই মিস্ট্রি স্পিনার জানালেন, ‘বিশ্বের যে কোনও প্রান্তে যে টুর্নামেন্টেই নাইটরা খেলুক না কেন, আমি ওদের শরিক হতে চাই। অর্থ বা বন্ধুত্বের জন্য নয়। ওরা আমার পরিবারের মত।’

নারিন আরও বলেন, ‘ভারতের মাটিতে দু’বাহু জড়িয়ে ওরা আমায় যেভাবে অভ্যর্থনা করে যেন মনে হয় মানুষ হিসেবে তুমি ওদের কতো পরিচিত। আমার পছন্দ-অপছন্দ সম্পর্কে ওরা ভীষণ ওয়াকিবহাল। আমার আপ্যায়ণে কোনও ত্রুটি রাখে না ওরা। প্রতি বছর আমি যখন ভারতের উদ্দেশ্যে রওনা দিই যেন মনে হয় আমার আরেকটা বাড়িতে যাচ্ছি।’ নারিনের কথায় আইপিএলে খেলা যেন তাঁর কাছে ঘরের মাঠে একটা টুর্নামেন্ট খেলার মতো। ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়র লিগ আর ইন্ডিয়ান প্রিমিয়র লিগে খেলার মধ্যে বিশেষ কোনও পার্থক্য নেই নাইটদের ইউটিলিটি ক্রিকেটারের কাছে।

তবে ত্রয়োদশ আইপিএল আয়োজনে বাধ সেধেছে করোনার মত অতিমারী। আপাতত অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত থাকা টুর্নামেন্টের ভবিষ্যত অনিশ্চতার মোড়কে ঢাকা। এ প্রসঙ্গে নারিন বলছেন, ‘আইপিএলের উত্তেজনা দারুণভাবে মিস করছি। অনুরাগী, প্রিয়জনরা আমাদের পারফরম্যান্স থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন ভেবে খারাপ লাগছে।’

উল্লেখ্য, চলতি মাসের শুরুতে টিকেআর ক্রিকেটারদের হাত ধরেই ত্রিনিদাদ ও টোবাগোর করোনা পীড়িত মানুষের কাছে পৌঁছে গিয়েছিল খাদ্য সামগ্রী। ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্সের ক্রিকেটার ও সাপোর্ট স্টাফরা নিজেদের হাতে ১ হাজার খাদ্য সামগ্রীর ব্যাগ দুঃস্থ পরিবারের হাতে তুলে দিয়েছিলেন। নাইটদের তরফে ড্যারেন ব্র্যাভো, কায়রন পোলার্ড, ডোয়েন ব্র্যাভোর পাশাপাশি এই মহৎ উদ্যোগে অংশ নিয়েছিলেন সুনীল নারিনও। নাইট ক্রিকেটারদের সঙ্গে ছিলেন ত্রিনিদাদ ও টোব্যাগোর পুলিশ কমিশনারও। দলের ক্রিকেটারদের এমন মানবিক দৃষ্টান্তে খুশি হয়ে টুইট করেছিলেন মালিক শাহরুখ খানও।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।