নয়াদিল্লি: বিরাট কোহলির হতাশাজনক পারফরম্যান্স আর তাঁরই পরিপ্রেক্ষিতে বিরুষ্কাকে নিয়ে লাইভ কমেন্ট্রিতে কিংবদন্তি সুনীল গাভাসকরের একটি মন্তব্য। তাতেই শোরগোল সোশ্যাল মিডিয়ায়। গাভাসকর নাকি এমন মন্তব্যে ভারতীয় ক্রিকেটের ফার্স্ট লেডি অনুষ্কা শর্মার প্রতি শালীনতার মাত্রা ছাড়িয়েছেন, অভিযোগ তেমনই। প্রাক্তন ক্রিকেটারের লাইভ কমেন্ট্রিতে ওই মন্তব্যের পালটা সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছেন অনুষ্কাও। কিন্তু আসলে তিনি ঠিক কী বলেছেন। তাঁর মন্তব্যের কীভাবে অপব্যাখ্যা করা হয়েছে, সেটাই পরিষ্কার করলেন সুনীল গাভাসকর।

ঘটনার সূত্রপাত বৃহস্পতিবার কিংস ইলেভেন পঞ্জাব বনাম রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর ম্যাচে লাইভ কমেন্ট্রিতে থাকা গাভাসকরের মন্তব্য ঘিরে। ব্রডকাস্টিং চ্যানেলের হয়ে হিন্দিতে ধারাভাষ্য দেওয়ার সময় কিংবদন্তি ক্রিকেটার বলেন, ‘লকডাউন চলাকালীন কেবল অনুষ্কা শর্মার বোলিং প্র্যাকটিস করেছে কোহলি। যাও ভিডিও দেখো। আর এতে বিশেষ লাভ হবে বলে আমার মনে হয় না।’ কিংবদন্তির এহেন মন্তব্যে শোরগোল পড়ে যায়। নেটাগরিকরা বলেন এমন মন্তব্যে শালীনতার মাত্রা অতিক্রম করেছেন প্রাক্তন ক্রিকেটার।

ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে অনুষ্কা পালটা লেখেন, ‘মিস্টার গাভাসকর আপনার মন্তব্য কুরুচিকর ছাড়া আর কিছুই নয়। কিন্তু আমি জানতে চাই একজনক ক্রিকেটারের খারাপ পারফরম্যান্সের জন্য তাঁর স্ত্রী’কে দায়ী করে আপনি কীভাবে এমন একটি মন্তব্য করলেন? বছরের পর বছর ধরে ধারাভাষ্যের সময় আপনি ক্রিকেটারদের ব্যক্তিগত জীবন থেকে সবসময় বিরত থেকেছেন। আপনার কী মনে হয় না আমি বা আমাদেরও একই সম্মান প্রাপ্য ছিল? আমি নিশ্চিত আমার স্বামীর পারফরম্যান্স নিয়ে বলার জন্য আপনার কাছে অন্য অনেক বাক্য ছিল কিন্তু আপনার কী আমাকে টেনে আনাই একমাত্র উদ্দেশ্য ছিল?’

কিন্তু তিনি আসলে ঠিক কী বলেছেন। একটি প্রথম সারির সংবাদমাদ্যমে অনুষ্কার ইনস্টা স্টোরির পরিপ্রেক্ষিতে এবং সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁর মন্তব্য নিয়ে সমালোচনা প্রসঙ্গে ‘লিটল মাস্টার’ বলেন তাঁর মন্তব্যের সম্পূর্ণভাবে অপব্যাখ্যা করা হয়েছে। গাভাসকর বলেন, ‘তোমরা যদি শোনো আমার কমেন্ট্রি তাহলে দেখবে আকাশ এবং আমি হিন্দি চ্যানেলের হয়ে কমেন্ট্রি করছিলাম এবং আকাশ বলছিল লকডাউনে ক্রিকেটারদের সীমিত অনুশীলনের কথা। যে কারণে প্রথমদিকের ম্যাচগুলোতে ক্রিকেটারদের মধ্যে জড়তা কাজ করছে। রোহিত প্রথম ম্যাচে ঠিকঠাক বল স্ট্রাইক করতে পারেনি, এমএসডি পারেনি, বিরাটও পারেনি। বেশিরভাগ ব্যাটসম্যানদের একই অবস্থা অনুশীলনের অভাবে।

এখানেই প্রশ্নটা ওঠে যে লকডাউনে বিরাট কোনও প্র্যাকটিসের সুযোগ পায়নি। যেটুকু করেছে সেটা তাদের আবাসনে এবং অনুষ্কা তাঁকে বোলিং করেছিল। এটাই আমি বলেছি। অনুষ্কা ওকে বোলিং করছিল আমি শুধু এই কথাটা ব্যবহার করেছি অন্য কিচ্ছু না। এখানে কীভাবে আমি অনুষ্কাকে দোষারোপ করলাম? কোথায় বা অনুষ্কার প্রতি শালীনতার মাত্রা অতিক্রম করলাম। ভিডিওতে যা দেখেছি আমি সেটাই বলেছি। যেটা ওদের কোনও প্রতিবেশী রেকর্ড করে ইন্টারনেটে আপলোড করেছিল। আমার বলার উদ্দেশ্য ছিল এটাই যে লকডাউনে কেউই পর্যাপ্ত অনুশীলনের সুযোগ পায়নি। কেউ যদি এটাকে বিকৃত করে তাহলে আমার কী করার আছে?’

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।