যা গরম পড়ছে তাতে আমরা সকলে কম বেশী অনেকটায় বিধ্বস্ত। এই সময় গায়ের কাছে কেউ গা ঘষলেও যেন বিরক্ত লাগে। যার ফলে অনেকে এই গরমে যৌনতার পরিপূর্ণ স্বাদ নিতে পারে না। চাইলেও যেন একে ওপরের শরীরকে উপভোগ করতে গেলেই তৈরি হয় বাঁধা। গরম বলে মনকে কি আর বাগ মানানো যায়? সঙ্গী এবং সঙ্গিনীর মনতো চাইবেই একে অপরের স্পর্শ, খুনসুটি। কিন্তু শুরুর আগেই অন্যজন ঘেমে ক্লান্ত হয়ে পড়ে। আপত্তি জানাতেই হয় মুখভার। কিন্তু এবার আর না। এই গরমে ও উপভোগ করা যাবে আপনার যৌন জীবন। এই নিয়ে রইল কিছু টিপস।

কী করবেন –

১. বাইরে প্রচণ্ড গরম। ঠান্ডা আরাম পেতে আজ AC নয়। আলতো হাতে বরং বরফের টুকরো ঘষুন আপনার পার্টনারের শরীরে।
২. শুরুটা হোক স্নান দিয়ে। শাওয়ারের নিচে দাঁড়িয়ে দুজনে মিলে… ভেজা শরীরে আলতো ছোঁয়া অনুঘটকের মত কাজ করবে।
৩. একে অপরের বডি স্পা করতে পারেন।
৪. হাতে কদিন সময় থাকলে জুটিতে ব্যাগ গুছিয়ে বেড়িয়ে পড়ুন। ঘুরে আসুন কোনও ঠান্ডার জায়গা থেকে।
৫. ভরপুর রোম্যান্স চাইলে এক সঙ্গে ঘুমোতে পারেন। তবে, দেখবেন দরজা-জানলাটা যেন বন্ধ থাকে।

কী করবেন না –

১. একসঙ্গে স্নান করলেও বাথটাবে সেক্স নয়।
২. সমুদ্র সৈকতেও সাহসী হওয়ার দরকার নেই।
৩. গরমে এড়িয়ে চলুন বিচ বা পুল পার্টি।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।