নয়াদিল্লি: কেন্দ্রীয় সুবিধা পেতে বদলে ফেলতে হবে রাজ্যের নাম। কারণ ইংরেজি অক্ষরের হিসেবে রাজ্যের প্রতিনিধিদের ডাকা হয়। সেই তালিকায় সবার শেষে রয়েছে পশ্চিমবঙ্গ।

এই অবস্থায় রাজ্যের নাম বদল করা সিদ্ধান্ত নেয় পশ্চিমবঙ্গ সরকার। বাম জমানায় সেই উদ্যগ নেওয়া হলেও তা কার্যকর হয়নি। পরিবর্তিত তৃণমূল সরকার তা করতে পেরেছে। বিধানসভায় পাস হয়ে গিয়েছে সেই বিষয়টি।

আরও পড়ুন- নিত্য ব্যবহারের জিনিসে প্রচুর ছাড়, আগাম টাকা নিয়ে চম্পট তামিলনাড়ুর ব্যবসায়ীর

রাজ্যের ছাড়পত্র পাওয়া গেলেও আসেনি কেন্দ্রের সবুজ সংকেত। সেই নিয়েই বৃহস্পতিবার রাজ্যসভায় সরব হয়েছেন তৃণমূল সাংসদ সুখেন্দু শেখর রায়। এদিন তিনি সংসদের উচ্চকক্ষের সেক্রেটারি জেনারেলকে লিখিত আকারে বিষয়টি জানিয়েছেন।

তৃণমূল সাংসদের চিথির বিয়ান অনুসারে, গত বছরের জুলাই মাসে পশ্চিমবংগ বিধানসভায় রাজ্যের নাম বদলের প্রস্তাব পাস করানো হয়। পশ্চিমবঙ্গের নাম বদল করে বাংলা করার প্রস্তাব দেওয়া হয় কেন্দ্রে কাছে। কিন্তু বিষয়টি ঝুলিয়ে রেখেছে কেন্দ্র। বিষয়টি দ্রুত নিষ্পত্তির জন্য কেন্দ্রকে আবেদন জানিয়েছেন তৃণমূল সাংসদ সুখেন্দু শেখর রায়। বাঙালির প্রকৃত পিরচয় দেওয়ার জন্য রাজ্যের নাম বদল একান্তই প্রয়োজন বলে দাবি করেছেন তিনি।

আরও পড়ুন- রাজ্যে শান্তি ফেরানোর দাবিতে রাজ্যপালের কাছে যাবেন বুদ্ধিজীবীরা

২০১৮ সালের জুলাই মাসের ১৮ তারিখে রাজ্যের নাম বাংলা করা নিয়ে প্রস্তাব পেশ করেন পরিষদীয়মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়৷ তাতে সমর্থন জানায় বামেরা৷ বাদ যায়নি কংগ্রেসও৷ তারাও এই প্রস্তাবে সম্মতি জানিয়েছে৷ মুখ্যমন্ত্রী জানান, এই প্রস্তাব কেন্দ্রের কাছে পাঠানো হবে৷ বাংলা বিশ্ব বাংলায় পরিণত হোক সেই কামনা করেন তিনি৷