স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা : অশুভ শক্তির বিনাশ আর শুভ শক্তির উদয় হউক, এই আশা নিয়েই পালিত হয় দশেহরা উৎসব। মঙ্গলবার সল্টলেকের সেন্ট্রাল পার্কে ৬০ ফুট রাবনের প্রতিকৃতী জ্বালিয়ে পালন করা হল দশেহরা উৎসব। কিন্তু উৎসবে দেখা গেল না প্রাক্তন মেয়র তথা বিজেপির সদ্য নেতা সব্যসাচী দত্ত।

এদিনের দশেহরা উৎসবে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের দমকল মন্ত্রী তথা তৃণমূল বিধায়ক সুজিত বসু ও বিধাননগর পুরসভার মেয়র কৃষ্ণা চক্রবর্তী প্রমুখ। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রাবণের প্রতিকৃতী জ্বালানোর পর অনুষ্ঠিত হয় একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। যেখানে আমন্ত্রিত ছিলেন প্রায় ২৫ হাজার মানুষ। যদিও রাবন বধের আগেই কিছুটা ছন্দ পতন ঘটে। ৬০ ফুট রাবণের প্রতিকৃতী জ্বালানোর যখন প্রস্তুতি চলছে তখন হঠাৎ করে শুরু হয় প্রবল বৃষ্টি।

খোলা আকাশের নিচে বসে থাকা হাজার হাজার মানুষ ছুটতে শুরু করেন। কেউ কেউ আবার বসার চেয়ার মাথায় দিয়ে বৃষ্টির হাত থেকে রেহাই পাওয়ার চেষ্টা করেছিলেন। বিগত আট বছর ধরে সল্টলেকে দশেহরা উৎসবের আয়োজন করে আসছেন সানমার্গ এবং সল্টলেক সংস্কৃতি সংসদ। কয়েক বছর ধরে এই উৎসব পালন করা হচ্ছে সল্টলেকের সেন্ট্রাল পার্কে। এই বছর সেন্ট্রাল পার্কের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্রায় ২৫ হাজার মানুষ। এমনটাই দাবি আয়োজক সংস্থার।

এদিনের অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন রাজ্যের দমকল মন্ত্রী সুজিত বসু, বিধাননগর পুরসভার মেয়র কৃষ্ণা চক্রবর্তী ও তৃণমূল বিধায়ক বৈশালি ডালমিয়াসহ প্রমুখ। শুধু এবছর এই অনুষ্ঠানে দেখা যায়নি বিধাননগর পুরসভার প্রাক্তন মেয়র তথা এক সময়ের তৃণমূল বিধায়ক সব্যসাচী দত্ত কে। কিছু দিন আগেই তিনি তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। অনুষ্ঠানের না থাকার বিষয়টি নিয়ে প্রাক্তন মেয়র সব্যসাচী দত্তের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তাকে ফোনে পাওয়া যায়নি।

সল্টলেক সাংস্কৃতিক সংসদ এর প্রেসিডেন্ট ললিত বেড়িওয়ালা জানান, এই বছর ৬০ ফুট রাবনের প্রতিকৃতী জ্বালিয়ে দশেহরা পালন করা হল। পাশাপাশি ছিল বর্নময় আলোর প্রদর্শনী। রাবন বধের পরে ছিল একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। যে অনুষ্ঠানে বিভিন্ন রাজ্যের শিল্পীরা অংশগ্রহণ করেছেন।