ফাইল ছবি

কলকাতাঃ  ভোটের তিনদিন আগেই নির্বাচনী প্রচার বন্ধ করে দেওয়া নিয়ে বিরোধীরা রাজ্য সরকারকেই কাঠ গড়ায় দাঁড় করাল৷ নির্বাচন কমিশন আজ হঠাৎ জানিয়ে দিল ১৬ তারিখ রাত ১০টা পর্যন্ত নির্বাচনী প্রচার করা যাবে৷ অর্থাৎ রাজনৈতিক দলগুলোর নির্বাচনী প্রচার একদিন কমে গেল৷

পড়ুন আরও- রাজীব কুমারকে বাংলা থেকে সরিয়ে দিল্লিতে পাঠানো হল

বাম পরিষদীয় নেতা সুজন চক্রবর্তী এই বিষয় তীব্র প্রতিবাদ করে জানান, প্রধানমন্ত্রী ও মুখ্যমন্ত্রীর প্রচার শেষ হতেই নির্বাচন কমিশন এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে৷ যাতে বাকি রাজনৈতিক দলগুলো আর প্রচার করতে না পারে৷ তিনি আরও বলেন, এটা রাজ্য সরকারের লজ্জা৷ রাজ্যে আইন শৃঙ্খলা বলে কিছু নেই৷ তার মতে, আইন শৃঙ্খলার অবনতির জন্যই কমিশন এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে৷

পড়ুন আরও- দ্রুত রাজ্যের স্বরাষ্ট্রসচিবকে সরানোর নির্দেশ নির্বাচন কমিশনের

প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র জানান, একদিন আগে নির্বাচনী প্রচার বন্ধ করে বিরোধীদের অধিকার খর্ব করা হয়েছে৷ তবে এটাও ঠিক যে গতকাল কলকাতায় যে ঘটনা ঘটেছে তাতে নির্বাচন হয়ত বুঝতে পেরেছে তাই এই সিদ্ধান্ত৷

প্রসঙ্গত, শেষ এবং সপ্তম দফা ভোটের আগে বড়সড় সিদ্ধান্ত নির্বাচন কমিশনের। আগামী ১৯ মে কলকাতা সহ বেশ কয়েকটি লোকসভা আসনে ভোট রয়েছে। আর তার আগে স্বরাষ্ট্রসচিব অত্রি ভট্টাচার্যকে সরানোর নির্দেশ। এমনই গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশ দিল নির্বাচন কমিশন। বর্তমান পরিস্থিতিতে স্বরাষ্ট্রসচিবের কাজ দেখবেন মুখ্যসচিব মলয় দে।

শুধু তাই নয়, আগামীকাল বৃহস্পতিবার রাত ১০টা অবধি শেষ প্রচার করতে পারবে রাজনৈতিকদলগুলি। তেমনই নির্দেশ দিয়েছে জাতীয় নির্বাচন কমিশন।