স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: সোনা পাচারের সঙ্গে স্ত্রী-র নাম জড়ানো সম্পূর্ণ রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত বলে অভিযোগ করেছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। এর পিছনে বিজেপি-সিপিএম-কংগ্রেস জড়িত বলে অভিযোগ করে আদালতে মামলা করার হুমকি দিয়েছেন তৃণমূলের যুব সভাপতি।

ডায়মন্ড হারবার কেন্দ্রের সাংসদের চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করে তাঁকে পালটা জবাব দিল সিপিএম। দলের পক্ষ থেকে এই বিষয়ে মুখ খুলেছেন যাদবপুরের বিধায়ক ডাঃ সুজন চক্রবর্তী এবং প্রাক্তন মহানাগরিক বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য। আদালতের পথেই জবাব দেওয়ার কথা বলেছেন বাম নেতারা।

আরও পড়ুন- সোনা পাচারের খবর বিজেপি-সিপিএম-কংগ্রেসের চক্রান্ত: অভিষেক

গত কয়েকদিন ধরেই বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের প্রকাশিত খবরে বলা হয়, ২ কেজি সোনা সহ ধরা পড়েছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রী। অবশেষে সেই ইস্যুতে মুখ খুললেন সাংসদ তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাইপো অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

রবিবার বিকেলের দিকে সাংবাদিক বৈঠক করে সেই ইস্যু নিয়ে কথা বলেন অভিষেক। স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন, সোনা সহ বিমানবন্দরে তাঁর স্ত্রীকে আটক করার খবরের কোনও সত্যতা নেই, এই খবর সম্পূর্ণ বিজেপি-সিপিএম-কংগ্রেসের চক্রান্ত৷ ভোটের মুখে বিজেপি এই অপপ্রচার চালাচ্ছে৷ কারণ ব্যক্তিগত আক্রমণ বিজেপির সংস্কৃতি৷

ফাইল ছবি

আরও পড়ুন- বিমানবন্দরের CCTV ফুটেজে প্রমাণ থাকলে রাজনীতি ছেড়ে দেব: অভিষেক

কলকাতা বিমানবন্দরে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রী-র কাছ থেকে শোনা উদ্ধারের বিষয়টি নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় সরব হয়েছিল তৃণমূল বিরোধী রাজনৈতিক দলের নেতারা। সেই সকল পোস্ট আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে না সরালে বা না ক্ষমা চাইলে আদালতে মানহানির মামলা করার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন অভিষেক।

তৃণমূল নেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাংবাদিক সম্মেলন শেষ হতেই পালটা সাংবাদিক বৈঠক করেন ডাঃ সুজন চক্রবর্তী এবং বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য। সুজনবাবু স্পষ্ট বলেন, “ক্ষমা চাওয়ার প্রশ্নই নেই। কোনও ট্যুইট সরাচ্ছি না। আদালতে মামলা করুক।” একই সঙ্গে তিনি আরও বলেন, “আমরা আদালতে লড়াই করতে প্রস্তুত। আদালতে গেলে কাঁদিয়ে ছাড়ব। সব প্রমাণ হয়ে যাবে।” তৃণমূল কংগ্রেসকে কটাক্ষ করে তিনি আরও বলেছেন, “মানই নেই তার আবার মানহানি!”