প্রতীকি ছবি

শ্রীনগর: ৭০টি গাড়ি কনভয় করে এগিয়ে যাচ্ছিল। কনভয়ে ছিল বাস, ট্রাক, এসইউভি গাড়ি। একেকটি বাসে ৩৫-৪০ জন জওয়ান। আচমকা উল্টো দিকে ছুটে আসে একটি মাহিন্দ্রা এসইউভি। মুহূর্তেই সব ছারখার। প্রচণ্ড শব্দ আর তারপরই চারপাশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে যায় মৃতদেহগুলি।

নিরাপত্তার ঘেরাটোপ পেরিয়ে ছুটে আসা ওই গাড়িটাতেই ছিল জয়েশ-ই-মহম্মদের আত্মহঘাতী জঙ্গি। আর সঙ্গে ছিল ৩০০ কেজি বিস্ফোরক। স্বাভাবিকভাবেই বিস্ফোরণের ভয়াবহতা ছিল প্রচণ্ড। ১০ কিলোমিটার দূর থেকেও শোনা যায় শব্দ।

বিস্ফোরণে শহিদ হয়েছেন ৪৪ জন। আহত হয়েছেন একাধিক জওয়ান। তাঁরা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

ঘটনার পরই কাশ্মীর যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের। সিআরপিএফের ডিজি সহ রাজনাথের নেতৃত্বে একটি দল কাশ্মীর যেতে পারে। আগামীকাল শুক্রবার সকালে ঘটনাস্থলে পৌঁছতে পারেন রাজনাথ।

সিআরপিএফের ডিজির সঙ্গে ফোনে কথা কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের। কীভাবে ঘটনা সমস্ত রিপোর্ট চেয়ে পাঠাল মন্ত্রক। শুধু সিআরপিএফই নয়, সমস্ত সূত্র থেকে দ্রুত রিপোর্ট চাইল কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও