নয়াদিল্লি: জল্পনার অবসান। রাজধানী দিল্লির প্রথম ফুটবল ক্লাব হিসেবে আই লিগে নাম লেখাল সুদেবা এফসি। বুধবার আসন্ন মরশুমে দিল্লি থেকে সুদেবা এফসি’র আই লিগ খেলার বিষয়টি নিশ্চিত করল অল ইন্ডিয়া ফুটবল ফেডারেশন। সুদেবা এফসি’র পাশাপাশি ২০২০-২১ মরশুমে বিশাখাপত্তনম থেকে আই লিগে নতুন ক্লাব হিসেবে আত্মপ্রকাশ করছে শ্রীনিধি এফসি।

আরও একটি ক্লাব শিলং’য়ের রিনিথ এফসি শেষ ল্যাপে এসে ছিটকে গেল আই লিগ খেলার দৌড় থেকে। এআইএফএফ বিড কমিটির সদস্যরা এবং পিডব্লুসি প্রতিনিধিরা একটি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দু’টি দল চূড়ান্ত করেন এদিন। সুদেবা এবং শ্রীনিধি এফসি’কে বেছে নেওয়ার পর একটি প্রেস রিলিজ প্রকাশ করেছে সর্বভারতীয় ফুটবল ফেডারেশন। সেখানে জানানো হয়েছে, ‘গত ৩১জুলাইয়ের মিটিং’য়ে সকল বিডারদের প্রেজেন্টেশন, জমা দেওয়া সমস্ত নথি স্ক্রুটিনি করা হয়েছিল। আই লিগ কমিটির সঙ্গে পরামর্শ করে পিডব্লুসি সুদেবা এফসি’কে ২০২০-২১ আই লিগ খেলার ছাড়পত্র দিয়েছে। একইসঙ্গে আই লিগ খেলার ছাড়পত্র মিলেছে শ্রীনিধি এফসি’রও।’

পূর্বে মুনলাইট এফসি নামে পরিচিত দিল্লির ক্লাব সুদেবা এফসি ২০১৬ নয়া ম্যানেজমেন্টের অধীনে নতুন নামে আত্মপ্রকাশ করে। আই লিগে সুদেবা এফসি’র অন্তর্ভুক্তির বিষয়টিকে দিল্লি ফুটবলের প্রেসিডেন্ট শাজি প্রভাকরণ ‘ঐতিহাসিক’ হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন। তাঁর কথায়, ‘দিল্লির ফুটবল ইতিহাসে আজকের দিনটা আক্ষরিক অর্থেই একটা রেড লেটার ডে। ভারতীয় ফুটবল ফেডারেশনের এই গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তটি রাজধানী শহরের ফুটবলে একটা যুগান্তকারী পরিবর্তন এনে দেবে।’

একইসঙ্গে সুদেবা এফসি’কে সর্বোতভাবে সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছেন দিল্লি ফুটবলের প্রেসিডেন্ট। এআইএফএফ জেনারেল সেক্রেটারি কুশল দাস সুদেবা এফসি’কে দেশের সেকেন্ড টিয়ার লিগে স্বাগত জানিয়েছেন। আই লিগ কমিটির চেয়ারম্যান সুব্রত দত্তর কথায়, ‘সমগ্র এআইএফএফ’র পক্ষ থেকে আমি সুদেবা এফসি’কে আই লিগ পরিবারে স্বাগত জানাচ্ছি। আমি ওদের শুভেচ্ছা জানাই।’ একইসঙ্গে ভাইজ্যাগের শ্রীনিধি এফসি’কেও আই লিগ পরিবারে স্বাগত জানিয়েছেন সুব্রত বাবু।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.