কলকাতা:  সাত সকালেই উদ্ধার হয়েছে বিজেপি নেতার ঝুলন্ত দেহ। হেমতাবাদারে বিধায়কের মৃত্যু ঘিরে বাড়ছে রহস্য। এবার সেই বিজেপি নেতার পকেট থেকে উদ্ধার হল সুইসাইড নোট। রাজ্য পুলিশের তরফ থেকে এমনটা জানানো হয়েছে।

রায়গঞ্জের পুলিশ সুপার সুমিত কুমার জানিয়েছেন, প্রাথমিক তদন্তে মনে হচ্ছে এটা আত্মহত্যা। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হচ্ছে। এলাকার মানুষের সঙ্গে কথা বলা হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে এটি আত্মহত্যা বলেই মনে করছে পুলিশ।

অন্যদিকে, দেবেন্দ্রনাথ রায়ের বুক পকেট থেকে একটা সুইসাইড নোট উদ্ধার করেছে পুলিশ। সেই সুইসাইড নোটে কয়েকজনের নাম উল্লেখ করা আছে। আর লেখা আছে আমার মৃত্যুর এরা দায়ী। পুলিশ জানিয়েছে, তদন্তে আমার সুইসাইড নোটটিকে যথেষ্ট গুরুত্ব দিচ্ছি। পাশাপাশি পরিবারের অভিযোগও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। সবদিক খোলা রেখে বিধায়কের মৃত্যুর তদন্ত করছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, বিধায়কের পকেট থেকে উদ্ধার হওয়া সুইসাইড নোটে যে নামগুলি সামনে এসেছে তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। তবে কাদের নাম রয়েছে সেই বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানাতে চাননি পুলিশ আধিকারিকরা। স্থানীয় নাকি বহিরাগতের নাম রয়েছে তাও জানাতে চাননি তদন্তকারী আধিকারিকরা। এমনকি কোনও নির্দিষ্ট রাজনৈতিক দলের নাম রয়েছে কিনা তাও জানানো হয়নি পুলিশের তরফে।

প্রসঙ্গত, রহস্যজনকভাবে মারা গেলেন উত্তর দিনাজপুরের হেমতাবাদের বিজেপি বিধায়ক দেবেন্দ্রনাথ রায়। বাড়ি থেকে এক কিলোমিটার দূরে এক বন্ধ দোকানের বারান্দা থেকে উদ্ধার হয়েছে তাঁর ঝুলন্ত দেহ। পরিবার অভিযোগ করেছে, তাঁকে খুন করে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে।

দেবেন্দ্রনাথ রায়ের পরিবারের দাবি, গতকাল রাত ১টা নাগাদ কয়েকজন মোটর বাইক আরোহী তাঁকে বালিয়ার বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যান। আজ সোমবার সকালে বালিয়া মোড়ে একটি বন্ধ দোকানঘরের বারান্দা থেকে তাঁর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়। স্থানীয়দের দাবি, রাত দশটা পর্যন্ত দেবেন্দ্রনাথবাবু স্থানীয় চায়ের দোকানে ছিলেন। তারপর রাত একটা নাগাদ একটি মোটর বাইক তাঁর বাড়ির দিকে যায়। এ ব্যাপারে সিবিআই তদন্ত চেয়েছেন তাঁরা।

বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষও অভিযোগ করেছেন, দেবেন্দ্রনাথকে খুন করা হয়েছে। পরিচিত লোকেদের ডাকে তিনি বাড়ি থেকে বেরিয়েছিলেন। তা না হলে রাত একটায় কেউ বাড়ি থেকে বার হয় কি? আত্মহত্যা করলেই হাতই বা বাঁধা কেন প্রশ্ন দিলীপের। তাঁর দাবি, স্থানীয় এক যুব তৃণমূল নেতার হাত রয়েছে এতে।

অন্যদিকে এই ঘটনার প্রতিবাদে আগামিকাল মঙ্গলবার জেলাজুড়ে বনধের ডাক দেওয়া হয়েছে।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ