স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: লোকসভার বাদল অধিবেশনের প্রথম দিনেই পাশ হয়ে গিয়েছে শিক্ষার অধিকার আইনের সংশোধনী বিল৷ এই বিলে পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণিতে ‘নো ডিটেনশন’ প্রত্যাহার করে ফিরিয়ে আনা হয়েছে পাশ-ফেল প্রথা৷ কিন্তু, শুধু পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণি নয়, পাশ-ফেল প্রথা প্রথম শ্রেণি থেকেই চালু করতে হবে৷ এই দাবিতে আজ বৃহস্পতিবার রাজভবনের চারটি ফটক আটকে বিক্ষোভ দেখালেন কমিউনিস্ট পার্টি এসইউসিআই-এর সদস্যরা৷

এসইউসিআই-এর দাবি, অবিলম্বে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারকে প্রথম শ্রেণি থেকে পাশ-ফেল প্রথা চালু করতে হবে৷ এই দাবিতে রাজভবনের চারটি ফটক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান কয়েক’শো এসইউসিআই সদস্য৷ জানা গিয়েছে, রাজভবন উচ্চ নিরাপত্তার এলাকা এবং এই এলাকায় জারি রয়েছে ১৪৪ ধারা৷ তাই প্রায় এক ঘন্টা ধরে রাজভবনের প্রধান ফটক অবরোধকারীদের চলে যেতে নির্দেশ দেয় পুলিশ৷ কিন্তু, তারপরও অবরোধ চালিয়ে যান বিক্ষোভকারীরা৷ ঘটনায় বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে ধস্তাধস্তি হয় পুলিশের৷ লাঠিচার্জ করে পুলিশ৷ বিক্ষোভকারীকে তুলে নিয়ে যায় পুলিশ৷

পড়ুন: দেশের আম আদমিকে বিমানে চড়াতে নয়া প্রকল্প কেন্দ্রের

পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণিতে পাশ-ফেল প্রথা ফিরিয়ে আনার বিষয়ে আগেই কেন্দ্রকে সম্মতি দিয়েছিল রাজ্য৷ এদিন ২১ জুলাইয়ের মঞ্চ পরিদর্শনে এসেছিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়৷ সেখানেই পাশ-ফেল প্রথা ফিরিয়ে নিয়ে আসার বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী স্পষ্ট করে জানিয়ে দেন কোন শ্রেণি থেকে পাশ-ফেল প্রথা চালু হবে তা নিয়ে এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি৷ তিনি বলেন, ‘‘‘কোন ক্লাস থেকে পাশ-ফেল শুরু হবে তা নিয়ে আলোচনা চলছে৷ মুখ্যমন্ত্রী ও শিক্ষাবিদদের সঙ্গে আলোচনা করেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে ৷’

পাশ-ফেল প্রথা নিয়ে একটি পাঁচ সদস্যের কমিটি তৈরি করেছে রাজ্য৷ এই কমিটির দায়িত্বে রয়েছেন রাজ্য বিএড বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সোমা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ এ ছাড়া, পাঁচ সদস্যের এই কমিটিতে রয়েছেন পশ্চিমবঙ্গ মধ্যশিক্ষা পর্ষদের সভাপতি কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায়, প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি মানিক ভট্টাচার্য সিলেবাস কমিটির চেয়ারম্যান অভীক মজুমদার এবং স্কুল শিক্ষা দফতরের অতিরিক্ত সচিব৷ মূলত, কোন শ্রেণি থেকে পাশ-ফেল ফিরবে সেই নিয়েই আলোচনা করা হবে এই কমিটিতে৷ জানা গিয়েছে, সাত দিনের কমিটিকে মধ্যে রিপোর্ট জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে রাজ্য৷

পড়ুন: ফাঁড়া কাটছে না! সিবিআইয়ের নতুন চার্জশিটে নাম চিদাম্বরমের

অন্যদিকে, রাজভবনের চারটি ফটক অবরোধকারীদের উপর পুলিশী লাঠিচার্জে আহত হয়েছেন বহু সদস্য৷ এমনই দাবি এসইউসিআইয়ের৷ তাঁদের দাবি, মোট ১১৭ জন আহত হয়েছেন ও তাঁদের মধ্যে ১৮ জনের অবস্থা গুরুতর৷ এ ছাড়া, পুলিশ মোট ১৬৮ জনকে গ্রেফতার করেছে বলেও দাবি এই কমিউনিস্ট দলের৷ লাঠিচার্জের প্রতি তীব্র নিন্দা জানিয়ে শুক্রবার রাজ্যব্যাপী প্রতিবাদ দিবস পালনের ডাক দেওয়া হয়েছে এসইউসিআইয়ের পক্ষ থেকে৷