তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: ‘‘আপনাদের কাছে যতো প্রার্থী আসবে তারা কাজ করার আগে ভোট চাইবে৷ তারপর বলবে কাজ করব৷ একমাত্র আমি ব্যতিক্রমী৷ আমি কাজ করে তবেই আপনাদের কাছে ভোট চাইতে এসেছি৷’’ মাঠ ভরতি মানুষের সামনে এমনটাই বলেন তৃণমূল প্রার্থী সুব্রত মুখোপাধ্যায়৷

আরও পড়ুন- ২৬ দিনের মাথায় রিপোর্ট তলব মুখ্যমন্ত্রীর দফতরের, স্বস্তিতে অনশনকারীরা

সোমবার বাঁকুড়ার শালতোড়া হাসপাতাল সংলগ্ন ফুটবল মাঠে দলীয় নির্বাচনী সভায় উপস্থিত ছিলেন তিনি৷ সেখানে তিনি আরও বলেন, ‘‘গত সাত বছরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের ইচ্ছা, পরামর্শ ও নির্দেশে বাঁকুড়ায় একের পর এক উন্নয়নমূলক কাজ করেছি আমি৷ আমার দফতরের মাধ্যমে এখানে কি কি কাজ করেছি তা আপনাদের একবার স্মরণ করিয়ে দিতে চাই৷’’ গ্রামীণ সড়ক যোজনা থেকে পানীয় জল থেকে শুরু করে মানুষের প্রয়োজনীয় অনেক প্রকল্প তাঁর হাত ধরে বাঁকুড়ায় হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি৷

আরও পড়ুন- নীতি আয়োগের রাজীবকুমার উড়িয়ে দিলেন রাহুল গান্ধীর আর্থিক প্রতিশ্রুতি

ভোট যত এগিয়ে আসছে প্রচার কর্মসূচীতে ঠিক ততটাই জোর দিচ্ছে শাসক দল তৃণমূল৷ এদিন স্থানীয় ব্লক নেতৃত্বের তরফে কর্মী সভার আয়োজন এই সভা জন সমুদ্র হয়ে উঠবে তা ভেবে উঠতে পারেনি কেউই৷ এদিনের এই সভার পর উজ্জীবিত স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব৷

প্রায় এক কিলোমিটার পথ হুড খোলা গাড়িতে জনসমুদ্র পেরিয়ে প্রার্থী সুব্রত মুখোপাধ্যায়কে নিয়ে সভাস্থলে পৌঁছান দলের জেলা সভাপতি অরূপ খাঁ৷ কর্মী সমর্থকদের ভিড় দেখে অভিভূত সুব্রত বাবু৷ এই প্রসঙ্গে সভা শেষে সাংবাদিক বৈঠকে বলেন, পুরো শালতোড়া আজ এখানে ভেঙ্গে পড়েছে৷ এই জনস্রোতই প্রমাণ করে সাধারণ মানুষ আমাদের পাশে আছে৷

অন্যদিকে সিমলাপাল তৃণমূলের ছাত্র ও যুব সংগঠনের পক্ষ থেকে বিশাল মিছিল অনুষ্ঠিত হয়৷ শীতল দে ও যাদব মুখোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে এই মিছিলে কয়েক হাজার মানুষ বিপুল ভোটে দলীয় প্রার্থী সুব্রত মুখোপাধ্যায়কে জয়ী করার আহবান জানানো হয়৷

আরও পড়ুন- বামেদের সঙ্গে সমঝোতার রাস্তা রেখেই প্রার্থী ঘোষণা কংগ্রেসের