তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: প্রচার শুরুর আগে মন্দির, চার্চ বা মসজিদ, কিছুই বাদ দিচ্ছেন না বাঁকুড়ার হেভিওয়েট তৃণমূল প্রার্থী সুব্রত মুখোপাধ্যায়৷ এদিন জেলায় পৌঁছেই বাঁকুড়া শহরের একাধিক মন্দির, চার্চ ও মসজিদে গিয়ে ঈশ্বর, প্রভু যীশু ও আল্লার কাছে আশীর্বাদ নিয়ে প্রচার শুরু করেন তিনি৷

রবিবার বিকেল নাগাদ বাঁকুড়া শহরে পৌঁছে সোমবার সকালে কর্মী সমর্থকদের সঙ্গে নিয়ে তিনি মহামায়া মন্দির, ভৈরবস্থানে পুজো দেন। পরে কলেজ রোডের খ্রীশ্চান মিশনারি চার্চে গিয়ে প্রভু যীশুর কাছে প্রার্থনা করেন তিনি। পরে মাচানতলার মসজিদে গিয়ে আল্লার কাছে দোয়াও করেন৷

জেলা তৃণমূল সূত্রে জানানো হয়েছে, এদিন বাঁকুড়া শহরে দলের যুব সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপস্থিতিতে একটি কর্মী সভায় যোগ দেবেন সুব্রত মুখোপাধ্যায়। তার পরেই আগামী দিনের প্রচার কর্মসূচি ঠিক করা হবে বলে তৃণমূল সূত্রে জানানো হয়েছে।

২০০৯ সালেই এই বাঁকুড়া থেকে শূন্য হাতে ফিরে যাওয়া এবার জেতার ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী সুব্রত মুখোপাধ্যায় বলেন, আমাদের দল ধর্ম নিয়ে রাজনীতিতে বিশ্বাস করেনা। আমরা সর্বধর্মে বিশ্বাসী। সেকারণেই মন্দির, চার্চ ও মসজিদে গিয়ে ঈশ্বর, প্রভু যীশু ও আল্লার কাছে প্রার্থনা জানালাম।

তিনি আরো বলেন, বাঁকুড়া আমার সব সময়ের প্রথম জায়গা। তাই দীর্ঘদিনের কেন্দ্র বালিগঞ্জে না লড়ে এখানে ছুটে এলাম। বাঁকুড়ার প্রতিটি ভোটার তার কাছ থেকে কিছু না সুবিধা পেয়েছে। তাই তার লড়াটা কোন ব্যাপার নয়। বাম-কংগ্রেস জোট নিয়ে ভাবিত নন জানিয়ে তিনি বলেন, এটা সত্যিই ওদের জোট না হলে জয়ের পথ আরো সহজ হলো।