নয়াদিল্লি: ভারতীয় নোটের উপর লক্ষ্মীর ছবি ছাপাতে চান বিজেপি সাংসদ সুব্রহ্মণ্য়ম স্বামী। নোটের উপর দেবী লক্ষ্মীর ছবি থাকলে দেশের অর্থনীতির উন্নতি হবে বলে মনে করেন ওই বিজেপি সাংসদ। এমনকী তাঁর এই ভাবনার বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকেও জানিয়েছেন তিনি।

মোদী জমানায় দেশের অর্থনীতি ধুঁকছে বলে প্রায়ই সুর চড়াচ্ছেন বিরোধীরা। আর এবার অর্থনীতির হাল ফেরাতে আজব দাওয়াই বিজেপি সাংসদের। ভারতীয় নোটের উপর দেবী-লক্ষ্মীর ছবি ছাপাতে চান সুব্রহ্মণ্য়ম স্বামী। সম্প্রতি মধ্যপ্রদেশে একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে সাংবাদিকদের একটি প্রশ্নের উত্তরে স্বামী বলেন, ‘ভগবান গণেশ বাধা-বিঘ্ন দূর করেন। আমি বলব নোটের উপর দেবী লক্ষ্মীর ছবি থাকলে ভারতীয় অর্থনীতির অবস্থাও অনেকটাই উন্নত হবে। এতে কারও খারাপ লাগার কথা নয়।’

পুরাণের নানা কাহিনীর বর্ণনা করে প্রায়ই সাম্প্রতিক নানা বিষয় নিয়ে মন্তব্য করতে দেখা গিয়েছে বিজেপি নেতা-মন্ত্রীদের। গরুর দুধে সোনা পাওয়া যায় বলে মন্তব্য করে রীতিমতো শোরগোল ফেলে দিয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গের বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। দিলীপ ঘোষের ওই মন্তব্যের সমালোচনাও করেছেন অনেকে। সম্প্রতি পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের একটি মন্তব্য ঘিরেও কটাক্ষ করেন অনেকে। রাজ্যপালের দাবি উড়ন্ত যানের ব্যবহার নাকি বিংশ শতাব্দীতেই প্রথম নয়। রামায়ণেও নাকি উড়ন্ত যানের ব্যবহারের উল্লেখ পাওয়া যায়। একইভাবে পরমাণু অস্ত্রের ব্যবহারও ভারতে বহু আগেই হয়েছিল বলে দাবি করেন রাজ্যপাল। সেই প্রসঙ্গে জগদীপ ধনখড় বলেন, ‘বিংশ শতাব্দী নয়, তার আগেও রামায়ণে উড়ন্ত যানের ব্যবহার ছিল। অর্জুনের তিরে ছিল পরমাণু অস্ত্র।’

আর এবার দেশের অর্থনীতির হাল ফেরাতেও নয়া পরামর্শ বিজেপি সাংসদ সুব্রহ্মণ্য়ম স্বামীর। যদিও স্বামীর এই বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্বের তরফে এখনও কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি। ভারতীয় নোটে দেবী লক্ষ্মীর ছবি ছাপানোর পরামর্শের পাশাপাশি নাগরিকত্ব আইন নিয়েও মধ্যপ্রদেশের ওই অনুষ্ঠানে মুখ খএালেন বিজেপি সাংসদ। এই প্রসঙ্গে সুব্রহ্মণ্য়ম স্বামী বলেন, ‘নাগরিকত্ব আইন নিয়ে বিরোধিতার কিছু নেই৷ কংগ্রেস ও মহাত্মা গান্ধী এটাই চেয়েছিলেন। মনমোহন সিং-ও সিএএ চেয়েছিলেন৷ আমরা এটা করে দেখিয়েছি। এখন ওঁরাই এটা মানতে চাইছেন না।’

নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসির সমর্থনে প্রথম থেকেই সওয়াল করে চলেছেন কেন্দ্রের মন্ত্রী থেকে শুরু করে বিজেপি নেতারা৷ কিন্তু নোটে দেবী লক্ষ্মীর ছবি ছাপিয়ে দেশের অর্থনীতি চাঙ্গা করার এই পরামর্শ সুব্রহ্মণ্যম স্বামীই প্রথম দিলেন৷