অরুণাভ রাহারায়, কলকাতা: বুধবার মুম্বইয়ে বিসিসিআই প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব নিলেন বাংলার ছেলে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। তিনি যে চেয়ারে আজ থেকে বসবেন, সেই চেয়ারে এর আগে কোনও বাঙালি বসেননি। সৌরভকে নিয়ে বহু দিন আগেই একটি কবিতা লিখেছিলেন কবি সুবোধ সরকার। ‘বেহালার ছেলেটা’ নামের সেই কবিতা এখন ছড়িয়ে পড়েছে সর্বত্র।

সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় অফিসিয়ালি বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট হওয়ার পরই তাঁকে শুভেচ্ছা জানালেন কবি সুবোধ সরকার। এই মর্মে সুবোধ নিজের ফেসবুক দেওয়ালে লেখেন, “বেহালার ছেলেটা আজ বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট। যে চেয়ারে তিনি বসলেন সে চেয়ারে এর আগে কোন বাঙালি বসেনি।”

যে-কোনও পদ ধরে রাখাই আদতে খুব কঠিন। সাফল্য আসলে গন্তব্য নয়। সাফল্য হল একটা যাত্রা। এ কথা মাথায় রেখেই সৌরভের উদ্দেশ্যে সুবোধ লেখেন– “এই চেয়ারটা কিন্তু সাংঘাতিক। এর থেকে বাঘের পিঠে বসে থাকা সহজ। একটার পর একটা তীর ছুটে আসবে, আমার বিশ্বাস সেই তীর অলংকৃত করে সৌরভ ফিরিয়ে দেবেন। আজ থেকে ক্রিকেট বিশ্ব সৌরভের দিকে নতুন করে তাকাবে।”

‘বেহালার ছেলেটা’ কবিতায় সুবোধ লিখেছেন:

“মা, দেখ, কী সুন্দর দেখাচ্ছে আমাদের ছেলেটাকে।
কে বলল কথাটা?
আমি
কে আমি? তারাতলায় থাকো।
না, আমি রাজারহাটে থাকি, আমি বারাসাতে থাকি
আমি বহরমপুর, আমি বালুরঘাট, আমি কোচবিহার।
রাত্রি সাড়ে বারোটা। আকাশ থমথমে। ভারতবর্ষের আকাশ
চিরকালই থমথমে। জ্যোৎস্নায় ভরে গেছে ভারতবর্ষ
গরীবের ভারত, অভিজাতের ভারত, দলিত ভারত।”

২০০৮ সালে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ভারতীয় দল থেকে অবসর গ্রহণের পর একটি টিভি চ্যানেলে সস্ত্রীক সাক্ষাৎকার দিতে আসেন। সেই অনুষ্ঠানে পরিচালক ছিলেন ঋতুপর্ণ ঘোষ। তিনি ‘দাদা’র সামনে সুবোধের কবিতাটি আবৃত্তি করেন। ঋতুপর্ণর কণ্ঠে সুবোধের কবিতাটির ভিডিও ইতিমধ্যেই ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।