নিউজ ডেস্ক, কলকাতা: লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশ পাওয়ার পর শুক্রবার বিকালে সাংবাদিক বৈঠকে তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় ঘোষনা করেছিলেন, বীজপুরের তৃণমূল বিধায়ক শুভ্রাংশু রায়কে ৬ বছরের জন্য সাসপেন্ড করা হল৷

জানিয়ে দিয়েছিলেন, দলের শৃঙ্খলা ভঙ্গ করা ছাড়াও দল বিরোধী কাজ ও কথা বলার জন্য পার্টি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে৷ তৃণমূল মহাসচিব আরও বলেছিলেন,‘‘দীর্ঘদিন ধরেই পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছিল বীজপুরের বিধায়কের কার্যকলাপ৷ কখনও সোশ্যাল মিডিয়ায় বিতর্কিত পোস্ট, আবার কখনও তিনি বেফাঁস মন্তব্য করেছেন৷ যা দল অনুমোদন করে না৷’’

অন্যদিকে বাবা নয় দলই তার কাছে বড়, বলেছিলেন মুকুল পুত্র শুভ্রাংশু৷ লোকসভার ফল ঘোষণার পর সেই শুভ্রাংশু ১৮০ ডিগ্রি ঘুরে গিয়ে দল সাসপেন্ড করার পর জানান, তৃণমূলে থেকে কিছু করলেও দোষ, না করলেও দোষ৷

ফাইল ছবি

আর এবার বাবা মুকুল রায়ের সঙ্গে দিল্লির পথে শুভ্রাংশু৷ বারবারই তাঁর বিজেপিতে যোগ দেওয়ার সম্ভাবনা নিয়ে গুঞ্জন শোনা গিয়েছে৷ সোমবার এই খবর প্রকাশ্যে আসার পর সেই গুঞ্জনের মাত্রা যেন আরও খানিকটা বেড়ে গিয়েছে৷ প্রশ্ন উঠছে, তাহলে কি  এখন স্রেফ সময়ের অপেক্ষা? তবে মুকুল রায় স্পষ্ট জানিয়েছেন, বাবার সঙ্গে ছেলে দিল্লির পথে এগোতেই পারে৷

সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে মুকুল রায় সাফ জানালেন, শুভ্রাংশু তাঁর সঙ্গে দিল্লি যাচ্ছেন৷ ছেলের রাজনৈতিক বিচক্ষণতা নিয়ে তিনি প্রশ্ন কখনোই তুলতে চান না৷ ছেলে দিল্লি যাচ্ছে, সেখানে বিভিন্ন জনের সঙ্গে কথা বলতেই পারে৷ তবে শুভ্রাংশ তার সঙ্গে যাচ্ছে এতে অন্যরকম কোনও ‘গল্প’ নেই৷ কারণ ছেলে বাবার সঙ্গে যেতেই পারে বলে মনে করেন মুকুল৷

সূত্রের খবর, তৃণমূলের একাধিক বিধায়ক এবং কাউন্সিলরও বিজেপি শিবিরের সঙ্গে যোগাযোগ করছে৷ বিজেপিতে যোগদান প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, ‘কাঁচরাপাড়া, হালিশহর, আদি সপ্তগ্রাম, নৈহাটি, বারাকপুর, দমদম, মেখলিগঞ্জ, মাথাভাঙা, বহু বোর্ড, বিধায়করা যোগাযোগ করছে৷ এ তো সবে শুরু৷ এখন এটা চলতে থাকবে৷’