স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: শান্তিপূর্ণভাবেই মিটেছে বারাকপুর লোকসভা কেন্দ্রের বীজপুর বিধানসভা এলাকার ভোট গ্রহণ। দিনের শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখী হয়ে এমনই দাবি করেছেন বীজপুরের বিধায়ক শুভ্রাংশু রায়।

বীজপুরের এই তৃণমূল বিধায়কের আরও একটি পরচয় আছে। তিনি তৃণমূলের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য এবং বর্তমানে বিজেপির জাতীয় স্তরের নেতা মুকুল রায়ের পুত্র। বাবার দল বদলের পর থেকে তাঁকে নিয়ে তৈরি হয় জল্পনা। যদিও তিনি তৃনমূলেই থাকছেন বলে দাবি করে আসছেন মুকুলপুত্র। নিজের অবস্থান জানাতে নিয়মিত অগ্নিপরীক্ষা দিতে হয়েছে বলে দাবি করেছিলেন শুভ্রাংশু।

সোমবার সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের পঞ্চম দফায় বারাকপুর কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ ছিল। এদিন বাবা মুকুল রায়ের নির্দেশ অক্ষ্রে অক্ষরে পালন করেছেন বিধায়কপুত্র শুভ্রাংশু। তিনি বলছেন, “গতকাল(রবিবার) মুকুল রায় বাবা হিসেবে আমাকে ফোন করে ছিলেন, বলেছিলেন গন্ডগোলে না জড়াতে। আমার এখানে কোন সমস্যা হয়নি।” সেই নির্দেশ মেনে তিনি এদিন কোনও ঝামেলায় জড়াননি বলে দাবি করেছেন শুভ্রাংশু। তিনি আরও বলেছেন, “আমি এমনিতেও কোনও ঝামেলায় জড়ায় না। একবার আমায় কিছু লোক ঝামেলায় জড়িয়ে দিয়েছিল।”

গত মার্চ মাসে ভাটপাড়া কেন্দ্রের প্রাক্তন বিধায়ক তথা তৃণমূলের দাপুটে নেতা অর্জুন সিং বিজেপি শিবিরে নাম লেখান। সেই সম্যেই শুভ্রাংশু অবস্থান নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। সেই সময়ে বীজপুরের বিধায়ক বলেন, “বারাকপুর কেন্দ্রে সবথেকে বেশি ভোটে লিড দেবেন তৃণমূল প্রার্থী দীনেশ ত্রিবেদী।” সেই প্রসঙ্গে এদিন শুভ্রাংশু বলেন, “বীজপুরের মানুষ আমাকে ভালোবাসে। আমার পক্ষে মানুষ রায় দেবে। ২৩ তারিখ বোঝা যাবে কি রায় হয়। বীজপুরে খুবই ভালো ভোট হয়েছে।”

বারাকপুরের সাত বিধানসভা আসনের মধ্যে কী বীজপুর থেকেই বেশি লিড দেবে তৃণমূল? এই প্রশ্নের উত্তরে শুভ্রাংশু রায়ের জবাব, “আশা তো করছিই।”