স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: পুজোর কটা দিন নিজের বাড়িতে জোরালো উপস্থিতি তাঁর৷ সব কাজে তাঁর পরামর্শ, পুজোর খুঁটিনাটিতে তাঁর যোগদান৷ তিনি বিজেপি নেতা মুকুল রায়৷ প্রতি বছরের মত এবছরও পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে মহাঅষ্টমীর অঞ্জলিও দিলেন তিনি।

আরও পড়ুন : অষ্টমীর শুভেচ্ছায় এ কী করলেন মোদী!

তবে নিজের বাড়ির পুজোতে তাৎপর্যপূর্ণভাবে অনুপস্থিত ছিলেন তার পুত্র তৃণমূল বিধায়ক শুভ্রাংশু রায়৷ দুর্গাপুজোর কাজেও বিজেপি তৃণমূল ফারাকটা চোখে আঙুল দিয়ে ধরা পড়ল বাবা ছেলের টানাপোড়েনে৷

তবে তাতে বিশেষ আমল দিতে নারাজ মুকুল রায়৷ মহাষ্টমীর পুষ্পাঞ্জলী দিয়ে তিনি বলেন রাজ্যে অশুভ শক্তির পরাজয় হোক, শুভ শক্তির জয় হোক। মায়ের কাছে তিনি এই প্রার্থনাই করেছেন৷

সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা প্রসঙ্গে স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গীতে তিনি রাজ্য সরকার এবং তৃণমূল কংগ্রেসের তীব্র সমালোচনা করেন। তৃণমূল কংগ্রেসের মহা সচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে সমালোচনা করে মুকুল রায় বলেন, উনি রাজনীতির এ বি সি ডি জানেন না। তৃণমূল কংগ্রেস আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে ২০টির বেশি আসন পাবে না।

আরও পড়ুন : পুজোয় একসাথে লালু পুত্র-বিহারি বাবু, নতুন সমীকরণের জল্পনা

তবে বাবা ছেলের দূরত্বের ছবি দেখা গিয়েছিল মহালয়ায় পিতৃতর্পণের সময়ও৷ শাসকদলে মুকুল রায় থাকাকালীন পুত্র শুভ্রাংশু রায়কেও দেখা যেত একসঙ্গে গঙ্গার ঘাটে আসতে। এখন আর পিতাপুত্রকে একসঙ্গে দেখা যায় না। যদিও বীজপুরের তৃণমূল বিধায়ক শুভ্রাংশু রায় বর্তমানে তৃণমূল কংগ্রেস দলের নির্দেশ মেনে বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের সঙ্গে দূরত্ব বাড়িয়ে চলছেন বলে মনে করছেন অনেকে। তখনই জল্পনা উঠেছিল কাঁচরাপাড়ার রায় বাড়ির দুর্গা পুজোয় পিতা পুত্রকে একসঙ্গে দেখা যাবে কি না৷ জল্পনা সত্যি করে সেটাই দেখা গেল মহাষ্টমীর পুজোয়৷