স্টাফ রিপোর্টার, বীজপুর: সম্পর্কে বাবা ছেলে হলেও এতদিন তাদের রাজনৈতিক দল ছিল আলাদা৷ কিন্তু দল বহিষ্কার করায় আপাতত বন্ধনমুক্ত মুকুল পুত্র শুভ্রাংশু৷ কিন্তু প্রকাশ্যে মুখ খোলায় যেকোনও মুহূর্তে নেমে আসতে পারে বিপদ৷ বহিষ্কৃত তৃণমূল বিধায়ক শুভ্রাংশুকে পরামর্শ দিলেন বাবা মুকুল রায়৷

শুক্রবার সন্ধ্যায় শুভ্রাংশু বলেন, ‘‘দলের সাসপেনশন নিয়ে বাবার সঙ্গে কথা হয়েছে৷ আমকে সাবধানে থাকতে বলেছেন উনি৷ অভিজ্ঞতা থেকে বলেছেন, যেকোনও মূহূর্তে হেনস্থার মুখে পড়তে হতে পারে৷’’

আরও পড়ুন: প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে তৃণমূলের ৪০ বিধায়ক: বিস্ফোরক অর্জুন

লোকসভা নির্বাচনের ফল সামনে আসার পরই মুকুল রায়ের ছেলেকে দল থেকে বহিষ্কার করে তৃণমূল৷ ৬ বছরের জন্য বহিষ্কার করা হয় বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের ছেলে তথা বীজপুরের তৃণমূল বিধায়ক শুভ্রাংশু রায়কে। তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘‘দীর্ঘদিন ধরেই পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছিল বীজপুরের বিধায়কের কার্যকলাপ৷ কখনও সোশ্যাল মিডিয়ায় বিতর্কিত পোস্ট, আবার কখনও তিনি বেফাঁস মন্তব্য করেছেন৷ যা দল অনুমোদন করে না৷’’

২০১৭ সালে তৃণমূল ছেড়ে পদ্ম শিবিরে নাম লেখান মুকুল রায়৷ তারপর থেকেই জোডা়ফুল শিবিরের নিশানায় বীজপুরের তৃণমূল বিধায়ক তথা মুকুল পুত্র শুভ্রাংশু৷ নানা সময়ে তাঁকে বিভিন্ন মন্তব্যের মুখোমুখি হতে হয়েছে৷ প্রশ্ন তোলা হয়েছে দলের প্রতি তাঁর আনুগত্য নিয়ে৷

সেই বিরক্তি দেখিয়ে তৃণমূলকে বিঁধে এদিন দুপুরে শুভ্রাংশু বলেন, ‘‘বারাকপুর লোকসভায় বীজপুর থেকে লিড দেব বলেছিলাম৷ কিন্তু তা হয়নি৷ বাবার কাছে হেরে গিয়েছি বীজপুরে ও বারাকপুর লোকসভায়৷ বাবাকে মানুষ বেছে নিয়েছেন৷ ভুলে গিয়েছিলাম মুকুল রায়ও ভূমিপুত্র৷’’

আরও পড়ুন: অভিষেক-শুভেন্দুর চ্যলেঞ্জ নেওয়া কেন্দ্রগুলিতেই নাক কাটা গেল মমতার

তাঁর সংযোজন, কাঁচরাপাড়ার কাঁচা ছেলে বলে দলের কেই কেউ সমালোচনা করেছিল বাবাকে৷ কিন্তু মানুষ তা মেনে নেয়নি৷ এখানে রায় পরিবারের সম্মান রয়েছে৷ মানুষ বুঝিয়ে দিল রায় পরিবারের কাঁচা ছেলেই কাঁচা মাথায় চাণক্যের বুদ্ধি দিয়ে দল তৈরি করেছিলেন, তারপর নিজেই তা শেষ করে দিলেন৷’’ শুভ্রাংশুর নিশানা করেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে৷

এরপরই বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেয় জোড়াফুল শিবির৷ সম্পূর্ণ ঘটনা টিভিতেই দেখেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়৷ পরে তিনি নিজের ও বিরোধী দলের নেতাদের প্রতি শাসক দল তৃণমূলের আচরণের কথা মনে করিয়ে দেন ছেলেকে৷ পরামর্শ দেন সাবধানে থাকার৷