স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা : টলিউডের সেলেব জুটিদের নিয়ে দর্শকমহলে উত্তেজনার অন্ত থাকে না৷ তবে টলিপাড়ার কাপেলদের নিয়ে সকলের ইন্টারেস্ট রয়েছে মানে এই নয় যে টেলিজগতকে দর্শক ভুলতে বসেছে৷

টেলিপাড়ার কাপেলদের কথা বললেই অনেকের নামই একে একে এই তালিকায় উঠে আসে৷ তবে তাঁদের মধ্যে কিছ ইউনিক জুটি তো থেকেই থাকে৷ তেমনই ইউনিক জুটি হল সুবান-তিয়াসা রায়৷

সম্প্রতি সুবান-তিয়াসার বিয়ের এক বছর সম্পন্ন হয়েছে৷ দু’জনেই যেহেতু অভিনয় জগতের মানুষ বলে মারাত্মক বিজ়ি শিডিউল৷ তবুও একে অপরের জন্য খানিক সময় বের করে বিয়ের এক বছর সেলিব্রেট করেছিলেন৷

পড়ুন: ‘জয়ী’ অভিনেত্রীর এনগেজমেন্টে শোরগোল ভক্তকূলে

তাও আবার শ্যুটিং সেটে বসে৷ তাছাড়াও বাড়িতে এলাহি আয়োজন হয়েছিল বিবাহবার্ষিকীর৷ বড় চকোলেট কেকের উপর তাঁদের ছবি সাজানো হয়েছিল টেবিল৷ টেবিলে অবশ্য কেবল অভিনব কেক নয়, ছিল ফুলের মেলা৷

পড়ুন: ব্যাকলেস ব্লাউজে এখন আরও হট মিশমী

নানা ধরণের ফুলের পাপড়ি দিয়ে সাজানো হয়েছিল চারপাশ৷ ঘরোয়া সেলিব্রেশনের পর রাতটুকু একসঙ্গে একান্তে কাটিয়েছিলেন সেলেব জুটি৷ শহরের ফাইভ স্টার হোটেলে ক্যান্ডেল লাইট ডিনার, আর কী চাই৷

পড়ুন: মারিনা বিচে জিভার সঙ্গে মাহি

অবশ্য ঠিক ক্যান্ডেল লাইট ডিনার নয়৷ রুফটপ রেস্টুরেন্ট৷ যেখানে ডিম লাইট থিম৷ সেখানে কী আর ক্যান্ডেল লাইট লাগে৷ দু’জনে কালো পোশাকে ট্যুইনিং করেছিলেন সেই দিন৷ সেলিব্রেশনের সেই ছবি বেশ ভাইরাল হয়েছিল নেটদুনিয়ায়৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.