হাওড়াঃ  ম্যাজিক দেখাতে গিয়ে গঙ্গায় নিখোঁজ হয়ে গেলেন এক মাজেসিয়ান। রবিবার সকালে ওই ঘটনা ঘটে। ওই ম্যাজিসিয়ানের নাম চঞ্চল লাহিড়ী। ঘটনার পর থেকেই গঙ্গায় তল্লাশি শুরু করে কলকাতা রিভার ট্রাফিক পুলিশ। ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছে।

জানা গিয়েছে, কলকাতার মিলেনিয়াম পার্ক থেকে ছেড়েছিল ভাড়া নেওয়া লঞ্চটি। এরপর হাত পা বাঁধা অবস্থায় তাঁকে নামিয়ে দেওয়া হয় গঙ্গায়। নামানো হয়েছিল একটি ক্রেনের সাহায্যে। অন্য একটি লঞ্চ থেকে ভিডিওগ্রাফিও করা হচ্ছিল। সেই লঞ্চে ছিলেন কমপক্ষে দশ জন ব্যক্তি। চঞ্চলবাবু তাঁর স্ত্রীকে হাওড়া ব্রিজের উপর দাঁড়াতে বলেছিলেন। কারণ জল থেকে উঠে তিনি স্ত্রীকে হাত নাড়বেন বলে জানিয়েছিলেন। উল্লেখ্য, চঞ্চল লাহিড়ী (৫৫) নিজেকে যাদুকর ম্যানড্রেক হিসেবে পরিচয় দিয়ে থাকেন।

জানা গিয়েছে, কলকাতা পুলিশের অনুমতি নিয়ে রবিবার গঙ্গায় ম্যাজিক শো করতে যান। কলকাতার মিলেনিয়াম পার্কে দুটি লঞ্চ ভাড়া করা হয়। এরমধ্যে একটিতে চঞ্চল নিজে ছিলেন। অন্য লঞ্চে বেশ কয়েকজন দর্শক ছিলেন। সেখান থেকে ভিডিওগ্রাফি করা হচ্ছিল। বেলা সাড়ে ১১টা নাগাদ মিলেনিয়াম ঘাট থেকে লঞ্চ ছাড়ে। এরপর লঞ্চটি আসছিল উল্টোদিকে। এরপর মাঝ গঙ্গার কাছাকাছি এসে তাঁকে হাত পা বাঁধা অবস্থায় গঙ্গায় নামিয়ে দেওয়া হয়। তিনি দাবি করেন, দশ মিনিটের মধ্যে জলের উপরে উঠে আসবেন। এরপর নির্দিষ্ট সময় পেরিয়ে গেলেও তিনি জল থেকে উঠছেন না দেখে সকলে কলকাতা রিভার ট্রাফিক পুলিশে খবর দেন। পুলিশ এসে ওয়াটার স্কুটার এনে তল্লাশি শুরু করে।

এর পাশাপাশি যাদুকরের সঙ্গে থাকা দুটি লঞ্চ এনেও তল্লাশি শুরু হয়। দীর্ঘক্ষণ তল্লাশি চললেও এখনও পর্যন্ত কোনও খবর পাওয়া যায়নি। নর্থ পোর্ট থানা তদন্তে নেমেছে। এর আগে গত ২০১২ সালেও এই যাদুকর ম্যানড্রেক গঙ্গায় ম্যাজিক শো করেছিলেন।মাঝ গঙ্গায় ক্রেনের সঙ্গে হাত-পা বেঁধে গঙ্গায় নেমে যাদু দেখাতেন তিনি। বারবার এমন করেও দেখেছেন। মিলেছে সাফল্যও। কিন্তু এবারই হল না। রবিবার সকালে সেই রকমের একটি বিপদজনক জাদু ধেখাতে গিয়ে নিখোঁজ হলেন জাদুকর চঞ্চল।

পুলিশের একাংশের মতে যোগব্যায়ামবিদরা সর্বাধিক সাড়ে চার মিনিট পর্যন্ত জলের নিচে থাকতে পারেন নিঃশ্বাস না নিয়ে। বহুবার তিনি সাফল্যের সঙ্গে এরকম ম্যাজিক দেখিয়েছেন। কিন্তু এবার আর সফল হলেন না। মাঝ গঙ্গায় তলিয়ে গেলেন বিখ্যাত যাদুকর চঞ্চল লাহিড়ি। এখনও পর্যন্ত তাঁর কোনও খোঁজ মেলেনি। রিভার পুলিশ কর্মীরা জানান, নদীর জলে জোরালো ‘আন্ডার কারেন্ট ‘ থাকলে অনেক সময়েই তলিয়ে যাওয়ার ঘটনা ঘটে। এখনও তাঁর কোনও খোঁজ মেলেনি। তাঁর খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে বিপর্যয় মোকাবিলা দল। ঘটনাস্থলে রয়েছে নর্থ পোর্ট থানার পুলিশ।