সান্টিয়াগো: আশ্চর্য মহাকাশ! অন্তত এই ব্রহ্মান্ডে প্রতিনিয়ত ঘটে চলেছে কত না অজানা ঘটনা। যা সবসময় জানা বা বোঝা আমাদের পক্ষে অসাধ্য। তবে মাঝেমধ্যে জ্যোর্তির বিজ্ঞানীদের দেওয়া নানা তথ্য এই অজানা ব্রহ্মান্ড সম্পর্কে আমাদের জানতে সহায়তা করে।

সম্প্রতি এই সুবিশাল মহাকাশ সম্পর্কে অজানা তথ্য এবং চোখ জুড়িয়ে যাওয়ার মতো একটি দৃশ্য সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন চিলির মহাকাশ বিজ্ঞানীরা।

জ্যোর্তির বিজ্ঞানীদের শেয়ার করা ওই ছবিতে দেখা গিয়েছে, মহাকাশের অন্ধকার মেঘমুক্ত আকাশের অসংখ্য তারার সমাবেশ। আমাদের সৌরজগতের এই ছায়াপথে বা মিল্কিওয়েতে অসংখ্য তারার সমাবেশ যেন প্রজাপতির আকার ধারণ করেছে । সুন্দর এই ছবিটি ধরা পড়েছে ইউরোপীয় সাউদার্ন অবজারভেটরি (ইএসও) টেলিস্কোপে।

নতুন ওই ছবিটিতে নীহারিকাদের দেখানো হয়েছে। আরও দেখা যাচ্ছে মরে যাওয়া বা খসে পড়া তারকাদের থেকে একপ্রকার হিলিয়াম গ্যাস বেরিয়ে এসেছে।

(এনজিসি ২৮৯৯) ৬,৫০০ আলোকবর্ষ দূরে মিল্কিওয়ের এমন ছবি এর আগে আর দেখা যায়নি। প্রজাপতির নীল অংশগুলি ৬,৫০০ আলোকবর্ষ দূরে অবস্থিত এবং অক্সিজেন গ্যাস নিয়ে গঠিত হয়। শুধু তাই নয়, ওই মিল্কিওয়ের চারপাশে লালচে বর্ণের হাইড্রোজেন জ্বলজ্বল করছে। আর এই গ্যাসের বলয়টির তাপমাত্রা ১৮,০০০ ডিগ্রি ফারেনহাইট অবধি পৌঁছে গিয়েছে।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও