স্টাফ রিপোর্টার, বারুইপুর: মদ পান করে এলাকায় মাতলামি ও অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালজ করছিল যুবক৷। প্রতিবাদ করায় দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রকে খুর দিয়ে আঘাত করার অভিযোগ মদ্যপের বিরুদ্ধে৷ ঘটনাটি দক্ষিণ ২৪ পরগণার ক্যানিং থানার তালদি বাজারের৷ ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছাত্র ফাইউদ্দিন খান৷

আরও পড়ুন: জলপাইগুড়িতে দুটি দোকানে দুঃসাহসিক চুরি

স্থানীয় সূত্রে খবর, প্রতিদিন রাতেই আকণ্ঠ মদ্যপান করে এলাকায় গালিগালাজ ও অভব্যতা করে পেশায় পেয়ারা বিক্রেতা মুন্না লস্কর। ঘটনার প্রতিবাদ করে দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্র ফাইউদ্দিন। অভিযোগ সেই সময় মুন্না অতর্কিতে ফাইউদ্দিনের উপর চড়াও হয়। বেধড়ক মারধোরের পাশাপাশি পকেট থেকে খুর বের করে প্রতিবাদী ছাত্রকে আঘাত করে।

আরও পড়ুন: ধৃত বাংলাদেশীকে জেল হেফাজতের নির্দেশ বারাকপুর মহকুমা আদালতের

খুরের আঘাতে দ্বাদশ শ্রেণীর ওই ছাত্রের মুখের বেশ খানিকটা অংশ কেটে যায়। ঘটনার পর থেকেই পলাতক অভিযুক্ত মুন্না লস্কর। স্থানীয়রা গুরুতর জখম ছাত্রকে উদ্ধার করে রাতেই ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে ভরতি করে৷ এ বিষয়ে ইতিমধ্যেই ক্যানিং থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন আক্রান্ত ছাত্রের পরিবার৷ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে ক্যানিং থানার পুলিশ।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।