স্টাফ রিপোর্টার, বহরমপুর: অঙ্ক পরীক্ষায় ফেল করায় গঙ্গায় ঝাপ দিয়ে আত্মঘাতী হল এক ছাত্র৷ ঘটনাটি ঘটেছে মুর্শিদাবাদের ভগবানগোলা থানার বরবরিয়া এলাকায়৷ ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে৷

জানা গিয়েছে, ভগবানগোলা থানার বরবরিয়া এলাকার বাসিন্দা সুরেন্দ্রনাথ মণ্ডলের এক ছেলে ও মেয়ে। ছেলে স্থানীয় একটি বেসরকারি স্কুলে সিবিএসই বোর্ডের দশম শ্রেণির ছাত্র ছিল৷ আর মেয়ে দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা দিয়েছে। সোমবার সিবিএসই বোর্ডের দশম শ্রেণির ফল প্রকাশ হয়৷ অনলাইনে ফল দেখে দশম শ্রেণির ছাত্র সৌভিক ঘোষ। ফল প্রকাশের পর সে জানতে পারে অঙ্কে ফেল করেছে সে।

এরপর বাড়িতে কাউকে কিছু না জানিয়ে এদিন সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে বেড়িয়ে যায় সৌভিক। রাত হয়ে গেলেও সে বাড়ি ফিরে আসেনি৷ পরিবার তাঁর খোঁজ শুরু করে৷ কিন্তু সেদিন রাতে সৌরভকে কোথাও খুঁজে পায়নি তার পরিবার৷ এরকম করে কেটে যায় একটা দিন৷ মঙ্গলবারও সে বাড়ি ফিরে আসেনি৷ এদিন সন্ধ্যায় তার দিদির ফোনে ম্যাসেজ পাঠায় সৌভিক৷ ম্যাসেজে সে সরি লিখে পাঠায়। এরপরই মোবাইল বন্ধ করে দেয় সে।

সৌভিক মোবাইল বন্ধ করে দেওয়ায় চিন্তায় পড়ে যায় পরিবার৷ পরিবারের সদস্যরা বুঝে উঠেতে পারছিল না সে কোথায় গিয়েছে বা ফোনটাই কেন বন্ধ করেছে৷ এরপর তারা খোঁজাখুঁজি শুরু করে৷ খুঁজতে খুঁজতে পৌঁছায় নশীপুর রেল ব্রিজের কাছে৷ সেখানে গিয়ে তারা দেখেন রেল ব্রিজের উপর পড়ে রয়েছে সৌভিকের মানিব্যাগ, মোবাইল৷ এতেই তাদের সন্দেহ৷ কিছুটা যেতে লক্ষ্য করেন ব্রিজের নিচে তার সাইকেলটিও পড়ে আছে৷

এরপর নিখোঁজ সৌভিকের খোঁজ শুরু করে তার পরিবার। দুদিন নিখোঁজ থাকার পর বুধবার সকালে বহরমপুর থানার ফরাসডাঙ্গা ঘাটে উদ্ধার হয় সৌভিকের মৃতদের। পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠায়। ঘটনায় শোকের ছাড়া নেমে এসেছে গোটা এলাকায়।

এই বিষয়ে মৃত ছাত্রের পরিবারের এক সদস্য জানিয়েছেন, ছোট থেকেই খুব চাপা স্বভাবের ছিল সৌভিক। কিন্তু পরীক্ষায় ফেল করায় এমন সিদ্ধান্তে হতবাক সকলে।