দিঘা: আমাদের পরবর্তী প্রজন্মকে সুন্দর দূষণমুক্ত সবুজপরিবেশ উপহার দিতে দেশ সহ বিশ্বজুড়ে চলছে মানুষকে সচেতন করার নানা কর্মসূচী। পরিবেশ নিয়ে প্রতি মুহূর্তে আন্তর্জাতিক মঞ্চে উঠছে সচেতনতার প্রশ্ন । দেশবাসিকে সচেতন করে তুলতে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকেও ঘোষণা করা হচ্ছে নানা কর্মসূচী। আর মোদীর এই স্বচ্ছ নির্মল দূষণমুক্ত ভারত গড়ে তোলার স্বপ্নকে অনেকটা এগিয়ে নিয়ে গেল তামিলনাড়ুর বছর পঁচিশ-ছাব্বিশের এক যুবক।

জানা গিয়েছে, তামিলনাড়ুর রামেশ্বরমের বাসিন্দা বছর পঁচিশ- ছাব্বিশের যুবক জোসেফ রাজ ছোটবেলা থেকেই এপিজে আব্দুল কালামের আদর্শে অনুপ্রানিত ছিল। আব্দুল কালামের ভাষায় জনপ্রিয় বানী ‘ঘুমিয়ে ঘুমিয়ে যা দেখ তা স্বপ্ন নয়, বরং যা তোমায় ঘুমাতে দেয় না সেটাই স্বপ্ন’। আর এই স্বপ্নকে বাস্তবায়িত করার লক্ষ্যে মাইলের পর মাইল জোসেফ পায়ে হেঁটে মানুষের মধ্যে প্লাস্টিক মুক্ত দেশ গড়ার বার্তা পৌঁছে দিচ্ছে। সূত্রের খবর, জোসেফ তামিলনাড়ুর একটি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ থেকে মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করা ছাত্র। ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করার পরই জোসেফ মনস্থ করে প্লাস্টিক মুক্ত সমাজ-দেশ গড়ে তুলবে। আর সেই লক্ষ্যের পথে পাড়ি দিয়ে জোসেফ আজ পায়ে হেঁটে হেঁটে তামিলনাড়ু থেকে পৌঁছে গিয়েছে পশ্চিমবঙ্গের দীঘার সৈকতে।

জানাগিয়েছে, জোশেফ তামিলনাড়ু থেকে পায়ে হেঁটে প্রথমে পৌঁছায় হাওড়া ষ্টেশনে । সেখান থেকে সে চোলে যায় সোজা আলমপুরে। সেখানে গিয়ে সাধারন মানুষকে বোঝাতে থাকে প্লাস্টিক ব্যবহারের ফলে সমাজ ও দেশের কি কি ক্ষতি হচ্ছে। এই ভাবেই ধীরে ধীরে বাগনান, মেচেদা সহ বিভিন্ন জায়গায় চলতে থাকে জোসেফের এই সমাজ সচেতনামূলক প্রচার। এই ভাবেই দীর্ঘ দশদিন ধরে চলে তাঁর প্রচার। শুধু বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে নয় বাগনান, মেচেদার বিভিন্ন স্কুলে গিয়েও চলে তাঁর এই প্লাস্টিক মুক্ত দেশ গড়ার বার্তার প্রচারের কাজ। স্কুল পড়ুয়া থেকে শুরুকরে সাধারন মানুষও তাঁর এই ধরনের প্রচেষ্টায় বেশ খুশি বলে খবর জানা গিয়েছে। তাঁর এই বার্তাই খুশি হয়ে অনেকেই আবার নিজেদের মত করে পোস্টার তৈরি করে চালাচ্ছে প্রচার।

এইভাবেই সচেতনতার বার্তা ছড়িয়ে দিতে দিতে রবিবার দীঘার সমুদ্র সৈকতে পৌঁছান জোসেফ। সেখানেও পর্যটকদের মাঝে চলে তাঁর এই প্রচার। জানা গিয়েছে, কোনও রকম সরকারি আর্থিক সাহায্য ছাড়াই চলছে জোসেফের এই প্রচার কাজ।

জোসেফের কথায়,’ পরবর্তী দিনেও অন্ধ্রপ্রদেশ, গুজরাট, মহারাষ্ট্র সহ দেশের প্রতিটি প্রান্তে পায়ে হেঁটে মানুষের মধ্যে পৌঁছে দিতে চাই এই সচেতনতামূলক বার্তা’। দীঘায় প্রচার শেরে রবিবারই জোসেফ রওনা হয় ওড়িশা রাজ্যের উদ্দেশে।

জোসেফ বলেন, ‘ আমার লক্ষ্য প্লাস্টিক মুক্ত দেশ গড়ার’। তাই আমি এই সচেতনতার বার্তা দেশের প্রতিটি প্রান্তে পৌঁছে দিতে চাই’।

সব মিলিয়ে জোসেফদের মত এইরকম মানুষদের শুভ উদ্যেগ পৌঁছে যাচ্ছে দেশের প্রতিটি প্রান্তে।