কলকাতা: ফের নির্যাতনের অভিযোগ স্কুল শিক্ষিকার বিরুদ্ধে৷ ক্লাস চলাকালীন এক তৃতীয় শ্রেনীর ছাত্রী টয়লেটে যেতে চাওয়ায় তাকে ইন্দ্রানী রায় নামে এক শিক্ষিকা বেধড়ক মারধর করেছে বলে অভিযোগ৷ চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে ক্যালকাটা এয়ারপোর্ট ইংলিশ হাই স্কুলে৷ প্রাথমিক চিকিত্সার পর ওই ছাত্রী আপাতত সুস্থ হলেও গভীর আতঙ্ক দানা বেঁধেছে তার মনে৷

আরও পড়ুন: প্রধান শিক্ষিকার পাশবিক অত্যাচারের শিকার শহরের দুই ছাত্রী

স্কুলের তৃতীয় শ্রেণির ওই পড়ুয়া এ দিন জানায় , ‘গত সোমবার আমার সায়েন্সের ক্লাস চলছিল৷ হঠাত্ করেই টয়লেট পাওয়ায় আমি দিদিমণির কাছে অনুমতি চাই৷ কিন্ত্ত তিনি অনুমতি দেননি৷ এর পরেই বন্ধুকে বলি , আমার অনেকক্ষণ ধরে টয়লেট পেলেও আমাকে যেতে দিচ্ছে না৷ ওই সময় আচমকা ম্যাডাম আমার কাছে এসে টানতে -টানতে আমায় টয়লেটে নিয়ে যায়৷ ’ সেখানেই ওই শিক্ষিকা তাঁকে মারধর করেন বলে অভিযোগ৷ ছুটির সময় মেয়েকে আনতে গিয়ে মা দেখেন , মেয়ে কাঁপছে৷ কেন এমন অবস্থা জিজ্ঞেস করায় মেয়ে কিছু বলেনি বলেই দাবি মায়ের৷

আরও পড়ুন: শ্বশুরবাড়ির অত্যাচারে প্রাণ গেল গৃহবধূর

পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন , ঘটনার পর তিন দিন পেরিয়ে গেলেও স্কুলে যেতে চাইছে না তাঁদের মেয়ে৷ পুরো পায়ে কালশিটে পরে গিয়েছে৷ নড়লে-চড়লে অসহ্য যন্ত্রণা হচ্ছে বাচ্চাটির। ঘটনার কথা জানিয়ে ফেসবুকে প্রতিকার চাওয়ার পাশাপাশি অভিযুক্ত শিক্ষিকার বিরুদ্ধে স্কুল কর্তৃপক্ষের কাছেও লিখিত অভিযোগ জানিয়েছেন ওই ছাত্রীর পরিবার৷

ফেসবুক পোস্ট থেকে উদ্ধৃত অংশবিশেষ

আরও পড়ুন: ‘চোর’ সন্দেহে দিনমজুরকে বেঁধে চোখে সূচ ঢুকিয়ে নির্মম অত্যাচার

অভিভাবকদের একাংশের দাবি , শৌচালয়ে যাওয়ার ইচ্ছাপ্রকাশ করায় তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রীকে যে শিক্ষিকা এ ভাবে মারধর করেন , তাঁর কঠিন শাস্তি হওয়া উচিত৷ অভিযুক্ত শিক্ষিকা ইন্দ্রাণী রায়ের বিরুদ্ধে পদক্ষেপের আশ্বাস দিয়েছ স্কুল কর্তৃপক্ষ।