ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, বর্ধমান: মাধ্যমিক পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের পর জেলায় জেলায় খুশির হাওয়া৷ তখনই বর্ধমানের মালিক পরিবার কান্নায় ভেঙে পড়েছে৷ পরীক্ষায় অকৃতকার্য হওয়ায় আত্মঘাতী হল ওই পরিবারের মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী৷ মৃতের নাম বর্ষা মালিক৷

জানা গিয়েছে, বর্ষা রায়না ১ নং ব্লকের নাড়ুগ্রামের বাসিন্দা৷ সে নাড়ুগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এবার মাধ্যমিক দেয়৷ কিন্তু এবছর সে ফেল করে৷ সে স্কুল থেকে রেজাল্ট নিয়ে এসে দেখে বাড়িতে কেউ নেই৷ সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে গলায় গামছার ফাঁস দিয়ে আত্মঘাতী হয় বর্ষা৷ ঘটনাটি জানাজানি হতে পরিবার ও এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে৷

মৃতের বাবা হারাধন মালিক জানিয়েছেন, সে গতবারও মাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়েছিল৷ কিন্তু সেবছর দুটি বিষয় ছাড়া বাকি বিষয়ে ফেল করেছিল বর্ষা৷ এরপরও সে এই বছর পরীক্ষা দেয়৷ কিন্তু এই বছরও সে ফেল করে৷ পর পর দুবার মাধ্যমিকে ফেল করায় আত্মঘাতী হয় সে৷

প্রসঙ্গত এবছর ৮৮ দিনের মাথায় ২০১৯ এর মাধ্যমিকের ফলাফল প্রকাশ করল মধ্যশিক্ষা পর্ষদ। চলতি বছরের ১২ ফেব্রুয়ারি শুরু হয় মাধ্যমিক পরীক্ষা। শেষ হয় ২২ ফেব্রুয়ারি। পরীক্ষায় সফল শিক্ষার্থীর হার ৮৬.০৭%। সব মিলিয়ে ১০ লক্ষ ৬৪ হাজার ৯৮০ পরীক্ষার্থী পরীক্ষা দেয়৷ তাদের মধ্যে ৬ লক্ষ ৩ হাজার ৩১১ জন মেয়ে৷ এবং ৪ লক্ষ ৬১ হাজার ৬৬৯ জন ছেলে পরীক্ষার্থী৷ যা পর্ষদের এতদিনের ইতিহাসে রেকর্ড বলেও জানিয়েছেন পর্ষদ সভাপতি কল্যানময় গঙ্গোপাধ্যায়।