বরেলি: স্কুলে পুলওয়ামার মতো হামলার হুমকি দশম শ্রেণির ছাত্রের। পুলিশি তদন্তে জালে অভিযুক্ত। নিজেকে নির্দোষ বলে দাবি করে হুমকির দায় অন্য একজনের কাঁধে চাপিয়েছে অভিযুক্ত ছাত্র। তবে সব দিকই খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

উত্তরপ্রদেশের বরেলির একটি স্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্রের ‘কীর্তি’ ঘিরে শোরগোল পড়ে গিয়েছে। স্কুল ক্যাম্পাসে বোমা পুঁতে রাখা হয়েছে বলে দাবি করে চিঠি পাঠায় অভিযুক্ত। একইসঙ্গে স্কুল কর্তৃপক্ষকে লেখা ওই চিঠিতে ২ লক্ষ টাকাও দাবি করা হয়। সেই টাকা না পেলে স্কুল ওড়ানোর হুমকি দেওয়া হয় চিঠিতে।

স্কুল সূত্রে জানা গিয়েছে, অভিযুক্ত ওই ছাত্র খবরের কাগজ বিক্রি করে। স্কুলের ম্যানেজার অনিল সিং জানিয়েছেন, দশম শ্রেণির ওই ছাত্র রবিবার স্কুলে পুলওয়ামার মতো হামলা চালানোর হুমকি দিয়ে চিঠি পাঠায়। দাবি মতো টাকা না পেলে সে স্কুল উড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেয়। ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই তৎপর হয় স্কুল কর্তৃপক্ষ। তড়িঘড়ি গোটা ঘটনা জানানো হয় পুলিশকে। বম্ব ডিসপোজাল স্কোয়াড নিয়ে স্কুলে যায় পুলিশ। তবে তল্লাশির পরেও স্কুলে বোমার হদিশ মেলেনি।

রবিবারের পর মঙ্গলবারও ফের স্কুলে পাঠানো হয় হুমকি চিঠি। ২ লক্ষ টাকা তোলা চেয়ে স্কুলে পাঠানো হয় চিঠি। বিজ্ঞানের নোটবুকের পাতা ছিঁড়ে ওই চিঠি লেখা হয়েছিল। তদন্তে নেমে স্কুলের পড়ুয়াদের সঙ্গে কথাবার্তা শুরু করে পুলিশ। নবম ও দশম শ্রেণির পড়ুয়াদের সঙ্গে কথা বলার পাশাপাশি তাদের পাঠ্যবই ও খাতা পরীক্ষা করা শুরু হয়। পুলিশি এই পদক্ষেপেই মেলে সাফল্য। অভিযুক্ত ছাত্রকে চিহ্নিত করে পুলিশ।

তদন্তকারী পুলিশ আধিকারিক শৈলেশ পান্ডে জানান, তদন্তে নেমেই অভিযুক্ত ছাত্রকে চিহ্নিত করা হয়। তবে পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে ছাত্রটির বক্তব্যে অসঙ্গতি ধরা পড়ে। অন্য কেউ তাকে ওই কাজ করতে বাধ্য করেছে বলে জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশকে জানিয়েছে অভিযুক্ত পড়ুয়া।

পুলিশ আরও জানিয়েছে, ইতিমধ্যেই নির্দিষ্ট ধারায় কেস নথিভুক্ত করে মামলা শুরু হয়েছে। অভিযুক্ত ওই স্কুলছাত্রকে আরও জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। তার বয়ান অনুযায়ী স্কুলে হুমকি চিঠি পাঠানোয় আরও কারও যোগ রয়েছে কিনা তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।