নারী নিরাপত্তা আজকের দিনে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে বিভীষিকার মত উঠে আসে সেসব ভয়ঙ্কর ঘটনা।

নতুন বছরকে আমন্ত্রণ করতে গোটা দেশ উদগ্রীব হয়ে থাকে। বিভিন্ন দেশেই বর্ষবরণকে ঘিরে মানুষজন আনন্দে মাতোয়ারা হয়ে থাকে। কিন্তু সেই আনন্দের মাঝেই মেলোডি ম্যাক্সওয়েল শিকার হয়েছিলেন এক গভীর আতঙ্কের।

২০১৮ সালের ৩১ ডিসেম্বর বন্ধুদের সঙ্গে হইহই করতে করতে তার চোখের সামনে নেমে এসেছিল আচমকা অন্ধকার। কেবলমাত্র এটুকু মনে করতে পেরেছিলেন অজ্ঞান হওয়ার আগে পানীয় খাচ্ছিলেন।

জ্ঞান আসার পরে তিনি নিজেকে আবিষ্কার করেছিলেন নিজের মায়ের গাড়িতে। আর দেখেছিলেন আশেপাশে রয়েছে স্থানীয় পুলিশ। সিসিটিভি ও পুলিশি তদন্তে জানা গিয়েছিল যে ওবি ফরগিভ নামক এক ব্যাক্তির সঙ্গে তিনি একটি পাবে গিয়েছিলেন বছর শেষের আনন্দে সামিল হতে। এছাড়াও ফরেনসিক পরীক্ষাতে প্রমাণিত হয়েছিল ওই তরুণীকে এক নেশার পানীয় খাওয়ানোর পরে ধর্ষণ করা হয়েছিল।

যদিও ওই তরুণী জানিয়েছেন একজন নির্যাতিতা হিসেবে নয় এই ভয়ঙ্কর ঘটনা ভুলে নতুনভাবে শুরু করতে চান। মানসিক ভাবে ওই তরুণী কতটা দৃঢ় তা তিনি প্রমাণ করেছেন এই মন্তব্যের মাধ্যমে। যদিও ২০১৯ সালের জুন মাসে অভিযুক্ত ওবি ফরগিভ কে ১১ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়েছে। ২০১৮ সালের ক্রিসমাস নাগাদ ওই তরুণীর মা জানিয়েছিলেন ক্রিসমাস ও বর্ষবরণ উপলক্ষে ওই তরুণী এবং তার মা প্যারিসে গিয়েছিলেন। ওই তরুণী জানিয়েছিলেন তিনি প্যারিসের আইফেল টাওয়ার এবং ল্যুভর মিউজিয়াম দেখতে চেয়েছিলেন।

মেলোডি জানান, ঘটনার আগে তিনি তার মাকে মেসেজ করে কোথায় যাচ্ছিলেন সে বিষয়েও জানিয়েছিলেন।

নির্দিষ্ট জায়গাতে পৌঁছে তিনি ভদকা এবং কোক খেয়েছিলেন। ওই জায়গাতে ছিল তখন আনন্দের মরসুম। তারপরে এক বন্ধু তাঁকে অন্য একটি পানীয় খেতে দিয়েছিলেন। আর সেটুকুই তার মনে আছে বলে জানিয়েছেন।
ভোর ৫ টা নাগাদ মেলোডির যখন জ্ঞান ফিরেছিল তখন তিনি নিজেকে দেখেছিলেন তাঁর মায়ের গাড়িতে। তাঁর গায়ে একটি ব্ল্যাঙ্কেট জড়ানো রয়েছে। তাঁর ব্যাগ ফোন পাওয়া যায়নি। তিনি জানিয়েছিলেন তাঁকে সেই সময়ে আগলে রেখেছিলেন তাঁর মা। তিনি তাঁর পড়নের পোশাক তদন্তকারী পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছিলেন। তারপরে তদন্ত করে পুলিশ অপরাধীকে শাস্তি দিয়েছিল।