প্রতীতি ঘোষ, বারাকপুর: নৈহাটি পুরসভার পুরবোর্ড নিজেদের দখলেই রাখল তৃণমূল কংগ্রেস । এই পুরসভায় গত প্রায় ৪ মাস ধরে অচলাবস্থা চলছিল। রাজ্য সরকার প্রশাসক নিযুক্ত করেছিল ৩১ আসনের নৈহাটি পুরসভায়। বারাকপুর লোকসভা কেন্দ্র আসনে বিজেপি প্রার্থী অর্জুন সিং জিতে সাংসদ হওয়ার পর বিভিন্ন পুরসভায় দল বদলের হিড়িক পড়ে যায়। নৈহাটি পুরসভার ১৮ জন কাউন্সিলর দিল্লিতে গিয়ে বিজেপিতে যোগদান করে।

ফলে এই পুরসভার ক্ষমতা বিজেপির দখলে চলে যায়, সেই সময় রাজ্য সরকার নৈহাটি পুরসভায় প্রশাসক নিয়োগ করে। নৈহাটি পুরসভার দলছুট ওই কাউন্সিলররা এরপর পুর প্রধান অশোক চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব আনে। আজ বুধবার সেই অনাস্থা ভোট ছিল। আর তাতে বিজেপির হাত থেকে পুরসভা ছিনিয়ে নিল তৃণমূল।

এদিন বারাসাতে জেলা শাসকের দফতরে দাঁড়িয়ে অশোক চট্টোপাধ্যায় বলেন, “ঘরের মানুষ ঘরে ফিরে এসেছে। যারা এখনও বিজেপিতে আছে, তাদের মধ্যেও ৪ জন আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ রেখেছে। বিজেপির সন্ত্রাস থেকে মানুষ মুক্তি পেতে চাইছে। যে সন্ত্রাসের রাজত্ব চলছিল, এখন তার থেকে ভাল পরিস্থিতি আছে। আগামী ২০২০ সালে রাজ্যে যে পুরসভা ভোট রয়েছে, তা অ্যাসিড টেস্ট। আগামী বছরে পুরসভা ভোটে বাংলার মানুষ বিজেপিকে ছুঁড়ে ফেলে দেবে।”

অন্যদিকে নৈহাটি পুরসভার বিজেপি নেতা তথা কাউন্সিলর এদিন সাংবাদিকদের বলেন, “দলের নির্দেশ মেনেই আমাদের দলের কেউ আস্থা ভোটে অংশ নেয়নি । আমাদের দলে এখন ৭ জন কাউন্সিলর আছে । যাদের আস্থা ভোটে নিয়ে গেছে, তাদের ভয় দেখিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এই সম্পর্কে দলের শীর্ষ নেতৃত্ব বলবে ।”

এদিনের আস্থা ভোট সম্পর্কে জেলা শাসক চৈতালি চক্রবর্তী বলেছেন, “এদিন ২৪ জন কাউন্সিলর আস্থা ভোটে অংশ নিয়েছিল, তারা অনাস্থার বিরুদ্ধে ভোট দেয় । ফলে ৩১ আসনের নৈহাটি পুরসভার ফলাফল হয় ২৪-০ । যারা ভোট দিতে আসেনি, তাদের নিরাপত্তা ব্যবস্থা করা স্বত্বেও তারা ভোট দানে বিরত ছিলেন। ।” ফলে শেষ পর্যন্ত সমস্ত ঘটনার পর দেখা গেল নৈহাটি পুরবোর্ড তৃণমূলের দখলেই থাকল।

এদিকে এসবের মধ্যেই নৈহাটি পুরসভার দলছুট কাউন্সিলররা একে একে ঘরে ফিরতে শুরু করে। ১৮ জন তৃণমূল কাউন্সিলরের মধ্যে ১০ জনই ফের তৃণমূলে ফিরে আসে। বুধবার বারাসাতে জেলা শাসকের দফতরে যে আস্থা ভোট অনুষ্ঠিত হয়, তাতে দেখা যায় বিজেপির কেউ উপস্থিত হয়নি, কিন্তু তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষে থাকা ২৪ জন কাউন্সিলর উপস্থিত হয়েছেন। জেলা শাসক চৈতালি চক্রবর্তীর উপস্থিতিতে আস্থা ভোটে ২৪ জন কাউন্সিলরই বিজেপির ডাকা অনাস্থা প্রস্তাবের বিপক্ষে ভোট দিয়ে পুনরায় তৃণমূল কংগ্রেসকে জিতিয়ে দেয়। নৈহাটি পুরসভার তৃণমূল কংগ্রেস পরিচালিত পুরসভার পুরপ্রধান হিসেবে বৃহস্পতিবার থেকে ফের দ্বায়িত্ব নেবেন অশোক চট্টোপাধ্যায়।