স্টাফ রিপোর্টার , কলকাতা: কালবৈশাখী না হলেও ঝোড়ো হাওয়ায় স্বস্তি ফিরল কলকাতায়। এদিন সন্ধ্যা ৬.৪৫ মিনিটে ৪৮ কিলোমিটার বেগে ঝড় বয়ে যায়। টানা এক মিনিট স্থায়ী না হওয়ার জেরে কালবৈশাখীর তকমা পায়নি ঝড়।

আজ রবিবার শহরের তাপমাত্রা সর্বোচ্চ ৩৬.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস, স্বাভাবিকের চেয়ে এক ডিগ্রি বেশি। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৬.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের চেয়ে এক ডিগ্রি বেশি। শনিবার রেকর্ড পারদ পতন হয়েছিল। ৩২ ডিগ্রিতে নেমেছিল সর্বোচ্চ তাপমাত্রা। স্বাভাবিকের চেয়ে তিন ডিগ্রি কমেছিল। সেটাই আজ চার ডিগ্রি বৃদ্ধি পেয়েছে। বাড়তি তাপমাত্রা এবং আর্দ্রতাই ঝড়ের কারণ।

শুক্রবার শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৪.৯ডিগ্রি সেলসিয়াস,স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি বেশি। সর্বনিম্ন ২৫.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস যা স্বাভাবিক। আর্দ্রতার পরিমাণ সর্বোচ্চ ৮৩ শতাংশ, সর্বনিম্ন ৩২ শতাংশ। এক কদম পিছিয়ে বৃহস্পতিবার কলকাতার তাপমাত্রা ছিল সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৬.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস,স্বাভাবিক। সর্বনিম্ন ২৪.৬ডিগ্রি সেলসিয়াস যা স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি কম। আর্দ্রতার পরিমাণ সর্বোচ্চ ৮১ শতাংশ, সর্বনিম্ন ৩৮ শতাংশ। বুধবার সকালে শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৭.৪ডিগ্রি সেলসিয়াস,স্বাভাবিকের থেকে দুই ডিগ্রি বেশি। সর্বনিম্ন ২৫.৬ডিগ্রি সেলসিয়াস যা স্বাভাবিক। আর্দ্রতার পরিমাণ সর্বোচ্চ ৯২ শতাংশ, সর্বনিম্ন ৪৩ শতাংশ।

এভাবেই তাপমাত্রা ও আর্দ্রতার পরিমান কমে গিয়ে ফের বাড়ছে কল্লোলিনীতে। আজকের ঝড়ের পরে ফের পারদ নামতে পারে। তবে হাওয়া অফিস অনেক আগেই জানিয়েছে গরম যেমন বাড়বে সঙ্গে বৃষ্টিও হতে পারে। ফলে ‘হিট ওয়েভ’ বা ‘লু’ বওয়ার সম্ভাবনা কলকাতায় কম। সারা রাজ্যেও এই বছর তুলনামূলক কম গরম অনুভূত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছিল হাওয়া অফিস। এদিকে দিল্লির মৌসম ভবন দেশবাসীর জন্য সুখবর দিয়েছে । জানানো হয়েছে বর্ষার পরিমাণ এই বছর স্বাভাবিকই থাকবে। বৃষ্টি হবে ৯৬ থেকে ১০৪ শতাংশ , যা আবহবিদদের অঙ্কের নিরিখে স্বাভাবিক।