নয়াদিল্লি: বিজেপির বিরুদ্ধে পত্রবোমা ফাটালেন প্রাক্তন সেনাকর্তারা৷ রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দকে চিঠি লিখে তারা জানান, নির্বাচনী প্রচারে জওয়ানদের কৃতিত্বকে নিজেদের স্বার্থসিদ্ধির কাজে লাগিয়ে তা নিয়ে ঢাকঢোল পেটানো বন্ধ হোক৷ প্রাক্তন সেনাকর্তাদের দাবি, রাজনৈতিক স্বার্থে সেনাবাহিনীর ব্যবহার বন্ধ করতে হবে৷ বৃহস্পতিবার তারা রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দকে ওই চিঠি দেন৷ চিঠিতে ১৫৬ জনের সই রয়েছে৷

এই চিঠিতে সই রয়েছে তিন বাহিনীর প্রাক্তন আট সেনাপ্রধানদের৷ লোকসভা ভোটের সময় সার্জিক্যাল স্ট্রাইক ও বালাকোট এয়ার স্ট্রাইকের কথা বারবার নির্বাচনী প্রচারে উল্লেখ করে ভোট চাইছেন রাজনৈতিক নেতারা৷ ভোটারদের তারা বোঝাতে চাইছেন, এর পুরো কৃতিত্ব তাদের৷ এতে ক্ষুব্ধ হয়েছেন প্রাক্তন সেনাকর্তারা৷ রাষ্ট্রপতির কাছে তাদের আর্জি, এই প্রবণতা খুবই বিপদজ্জনক৷ কোনও মতেই তা গ্রহণযোগ্য নয়৷

উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের উপর বেশি চটেছেন তারা৷ একটি জনসভায় যোগী সেনাবাহিনীকে ‘মোদীজি কি সেনা’ বলে উল্লেখ করেন৷ বিরোধীরা তো বটেই তাঁর এই মন্তব্যকে মোটেই ভালো ভাবে নেননি প্রাক্তন সেনাপ্রধানরা৷ চিঠিতে সেই অসন্তোষের কথাও তারা গোপন করেননি৷ তাদের বক্তব্য, সেনাবাহিনীর সঙ্গে রাজনীতির কোনও যোগ নেই৷ তাই নির্বাচনী প্রচারে তাদের বারবার টেনে না আনাই ভালো৷ কারণ এর সঙ্গে সেনাবাহিনীর মান ও মর্যাদার প্রশ্ন জড়িয়ে৷

নিঃসন্দেহে প্রাক্তন সেনাকর্তাদের এই চিঠিতে নরেন্দ্র মোদী ও অন্যান্য বিজেপি নেতাদের নিশানা করা হয়েছে৷ কারণ নির্বাচনী প্রচারে তারাই সবথেকে বেশি বালাকোট এয়ারস্ট্রাইক ও সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের কথা উল্লেখ করেছেন৷ প্রতিটি জনসভায় বীর সেনাদের বীরত্বের গাঁথা গেয়েই চলেছেন৷ বিরোধীরাও এই নিয়ে বিজেপিকে নিশানা করে৷ আর প্রাক্তন সেনাকর্তাদের এই চিঠির পর আক্রমণের ঝাঁঝ আরও বাড়িয়েছেন তারা৷ কংগ্রেস ট্যুইট করে লিখেছে, সেনাকে সামনে রেখে বিজেপি ভোট চাইতে পারে৷ কিন্তু একটা জিনিস পরিস্কার সেনারা দেশের সঙ্গে৷ বিজেপির সঙ্গে নয়৷