আমদাবাদ: কোভিড এখনও পুরোপুরি বিদায় নেয়নি। তাই কোভিড আবহে গত জুন মাসে ক্রিকেট বলে লালা ব্যবহারে যে নিষেধাজ্ঞা বলবৎ হয়েছিল তা এখনও জারি রয়েছে। এমন সময় ভুল করে ক্রিকেট বলে লালা ব্যবহার করার কিছু বিক্ষিপ্ত ঘটনাও ঘটে গিয়েছে। যেমনটা বুধবার মোতেরায় পিঙ্ক বল টেস্টে ঘটালেন বেন স্টোকস। তৃতীয় টেস্টের প্রথমদিন তৃতীয় সেশনে এদিন ভুল করে বলে লালারস ব্যবহার করে বসেন স্টোকস। ফলে মাঠে অন-ফিল্ড আম্পায়ারের ওয়ার্নিং তো পেয়েছেনই, সঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভারতীয় অনুরাগীদের ট্রলের শিকার হতে হল ইংরেজ অল-রাউন্ডারকে।

ঘটনাটি এদিন ঘটে তৃতীয় সেশনে ভারতের ইনিংসের দ্বাদশ ওভারে। স্টুয়ার্ট ব্রডের ওভারের মাঝেই বল পালিশ করার জন্য মুখ থেকে লালারস বের করে তা বলে ব্যবহার করেন ইংরেজ অল-রাউন্ডার। আম্পায়ারের নজর এড়ায়নি সেই ঘটনা। নিয়মানুযায়ী স্টোকসকে ডেকে সতর্ক করে দেন অন-ফিল্ড আম্পায়ার নিতিন মেনন। পাশাপাশি কোভিড বিধি মেনে বল পরিষ্কার করার পরেই ফের খেলা চালু করার অনুমতি দেন মেনন।

নিয়মানুযায়ী লালা ব্যবহারের জন্য কোনও দলকে এক ইনিংসে সর্বোচ্চ দু’বার সতর্ক করবেন অন-ফিল্ড আম্পায়ার। তৃতীয়বার একই ঘটনা ঘটলে বিপক্ষ দলের খাতায় পেনাল্টি ৫ রান যোগ হবে। এরপর যদিও দ্বিতীয়বার আর একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি করেননি স্টোকস তবে সোশ্যাল মিডিয়ায় ইংরেজ অল-রাউন্ডার বেজায় ট্রল হয়ে গিয়েছেন ততক্ষণে। পরিপ্রেক্ষিতে এক অনুরাগী মজার ছলে ইংরেজ অল-রাউন্ডারের নাম বিকৃত করে লেখেন, ‘ব্যান স্টোকস’। কেউ লেখেন, ‘স্টোকসের ব্রেন ফেড হয়ে গিয়েছে’। তো আবার কেউ আবার লেখেন, ‘স্টোকসকে আজ সম্পূর্ণ বিদ্রোহী মেজাজে দেখা যাচ্ছে।’

বিদ্রোহী মেজাজে বলার স্বপক্ষে আরও একটি কান্ড এদিন ঘটান স্টোকস। ভারতের ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে স্লিপে শুভমান গিলের একটি মাটিঘেঁষা ক্যাচ ধরে তা আউট বলে দাবি করেন ইংরেজ অল-রাউন্ডার। সফট সিগন্যালে অন-ফিল্ড আম্পায়ার আউট দিলেও থার্ড আম্পায়ারের কাছে যেতেই তা নাকচ হয়ে যায়। অথচ অন-ফিল্ড আম্পায়ারকে ঘিরে ধরে সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানাতে শুরু করেন ইংল্যান্ড ক্রিকেটাররা। তাদের দাবি অন-ফিল্ড আম্পায়ারের সফট সিগন্যাল যথাযথ পরীক্ষিত হয়নি তৃতীয় আম্পায়ারের কাছে। তৃতীয় আম্পায়ার আরও সময় নিয়ে সিদ্ধান্ত জানাতে পারতেন বলে দাবি করেন তারা।

এত স্বল্প সময়ে তৃতীয় আম্পায়ার তাঁর সিদ্ধান্ত জানিয়ে দিলে অন-ফিল্ড আম্পায়ারের সফট সিগন্যাল একপ্রকার মূল্যহীন হয়ে যায়। এমন দাবিতেই মোতেরায় খানিক বিতর্কের আঁচ পিঙ্ক বল টেস্টের প্রথমদিন। উল্লেখ্য, প্রথম ইনিংসে অক্ষরে প্যাটেলের ৬ উইকেটের সৌজন্যে ১১২ রানেই গুটিয়ে যায় ইংল্যান্ড। জবাবে দিনের শেষে ভারতের রান ৩ উইকেটে ৯৯।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.