সিডনি: ভারতের বিরুদ্ধে চলতি সিরিজের প্রথম দু’টি টেস্টে দু’ অংকের রানে পৌঁছতে পারেননি৷ তিনটি ইনিংসের মধ্যে দু’বারই রবিচন্দ্রন অশ্বিনের শিকার হয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোলড হয়েছিলেন৷ কিন্তু সিডনিতে তৃতীয় টেস্টে ব্যাট হাতে সব সমালোচনার জবাব দিলেন স্টিভ স্মিথ৷ দুরন্ত সেঞ্চুরি করে দলকে ভালো জায়গায় পৌঁছে দিলেন প্রাক্তন অজি অধিনায়ক৷

এদিন ১৩১ রানের ইনিংস খেলে সব সমালোচনার জবাব দিলেন স্মিথ৷ কেরিয়ারে এদিন তাঁর ২৭তম টেস্ট সেঞ্চুরিটি করেন তারকা অজি ব্যাটসম্যান৷ শেষ পর্যন্ত ১৩১ রানে জাদেজার দুরন্ত থ্রো-তে রান-আউট হন স্মিথ৷ ভারতের বিরুদ্ধে এদিন সর্বাধিক ৮টি সেঞ্চুরি করে গ্যারি সোবার্স ও ভিভ রিচার্ডসকে ছুঁলেন তিনি৷ ভারতের বিরুদ্ধে ৮টি টেস্ট সেঞ্চুরি রয়েছে প্রাক্তন অজি অধিনায়ক রিকি পন্টিংয়ের৷ তবে সবচেয়ে কম টেস্ট খেলে ৮টি সেঞ্চুরি করেন স্মিথ৷ মাত্র ২৫টি টেস্টে এই নজির গড়েন তিনি৷ পন্টিং ভারতের বিরুদ্ধে ৫১টি টেস্টে আটটি সেঞ্চুরি করেছিলেন৷ সমসংখ্যক সেঞ্চুরি করতে রিচার্ডস নিয়েছেন ৪১টি টেস্ট৷ আর গ্যারি সোবার্স স্মিথের থেকে পাঁচটি টেস্ট বেশি খেলে ৮টি সেঞ্চুরি করেছিলেন৷

সিডনি টেস্টের আগে স্মিথের সর্বোচ্চ স্কোর ছিল ৮৷ প্রথম দু’টি টেস্টের দুই ইনিংসে তাঁর অবদান ছিল ১ ও ১৷ আর মেলবোর্নে দ্বিতীয় টেস্টে স্মিথ করেছিলেন ০ ও ৮ রান৷ অ্যাডিলেড ওভালে সিরিজের প্রথম টেস্টে অস্ট্রেলিয়া জিতলেও স্মিথের অবদান ছিল না৷ প্রথম টেস্টে ব্যাট হাতে দলের তারকা ব্যাটসম্যানের অবদান ছিল মাত্র ২ রান৷ প্রথম ইনিংসে এক রান করে অশ্বিনের শিকার হয়েছিলেন স্মিথ৷ ভারতীয় অফ-স্পিনারের বলে অজিঙ্ক রাহানের হাতে ক্যাচ দিয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরেছিলেন তিনি৷ দ্বিতীয় ইনিংসে এক রানে অপরাজিত ছিলেন৷

মেলবোর্নে বক্সিং ডে টেস্টে তাঁর অবদান মাত্র ৮ রান৷ প্রথম ইনিংসে শূন্য৷ সেই অশ্বিনের শিকার৷ ভারত অধিনায়ক রাহানের পাতা ফাঁদে পা-দেন প্রাক্তন অজি অধিনায়ক৷ লেগ-স্লিপে রাহানের হাতে ক্যাচ তুলে দেন স্মিথ৷ এমসিজি-তে দ্বিতীয় টেস্টে তাঁর অবদান ৮ রান৷ ১৩১ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করা অস্ট্রেলিয়ার ইনিংসের হাল ধরতে নামা স্মিথকে বোল্ড করেন জসপ্রীত বুমরাহ৷

বক্সিং ডে টেস্টের পর নিজের ব্যাটিং ফর্ম নিয়ে স্মিথ বলেছিলেন, ‘এই মুহূর্তে আমার দরকার ক্রিজে বেশি করে সময় কাটানো৷ চলতি বছরে ওয়ান ডে ম্যাচে আমি সর্বাধিক ৬৪ বল খেলেছি৷ নেটে তুমি যতক্ষণই ব্যাট করো না কেন, ম্যাচে খেলাটা অন্যরকম৷ আর আমি সেটাই করতে চাইছি৷ তবে কোয়ালিটি বোলারদের বিরুদ্ধে সেটা করা সহজ নয়৷’

সিডনিতে সেটাই করে দেখান প্রাক্তন অজি অধিনায়ক৷ ক্রিজে এসে প্রথমে থিতু হয়ে তারপর ভারতীয় বোলারদের আক্রমণে যান স্মিথ৷ দ্বিতীয় উইকেটে মার্নাস ল্যাবুশানের সঙ্গে সেঞ্চুরি পার্টনারশিপ গড়ে দলকে বড় রানে পৌঁছে দেওয়ার পাশাপাশি আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে নেয় অজি তারকা ব্যাটসম্যান৷ যার ফলস্বরুর তাঁর ব্যাট থেকে এল দুরন্ত সেঞ্চুরি৷ শেষ পর্যন্ত ২১৬ বল খেলে ১৬টি বাউন্ডারির সাহায্যে ১৩১ রানে রান-আউট হন স্মিথ৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.