State will announce good news forFolk artist

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা:এবছর পুজোয়বাংলার লোকশিল্পীদের জন্য সুখবর৷আরও এক লক্ষ লোকশিল্পীকে ‘লোকপ্রসার প্রকল্প’ –এর আর্থিক অনুদান দিতে চলেছে রাজ্য সরকার৷পুজোর আগেই যাতে বাংলার বিভিন্ন প্রান্তের এই শিল্পীদের ওই প্রকল্পের আওতায় আনতে তৎপর তথ্য ও সংস্কৃতি দফতর।

বাংলার লোকশিল্প আর তার সঙ্গে যুক্ত শিল্পীদের পুনরুজ্জীবনের লক্ষ্যে ‘লোকপ্রসার প্রকল্প’ চালু করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।এই প্রকল্পের আওতায় থাকা ষাটোর্ধ্ব দুঃস্থ ও আর্থিকভাবে পিছিয়ে থাকা শিল্পীরা মাসিক এক হাজার টাকা পেনশনও পান। ৬০ বছর বয়সের নীচে থাকা শিল্পীদের জন্য রয়েছে হাজার টাকা করে রিটেনার ফি।

আরও পড়ুন: সদ্যপ্রয়াত কালিকাপ্রসাদের স্মৃতিচারণায় ময়ূখ-মৈনাক

গত জুলাই মাসের গোড়ায় পূর্ব মেদিনীপুরের দীঘায় এক সভায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণার করেছিলেন,লোকপ্রসার প্রকল্পের আওতায় ১ লক্ষ ৮৪ হাজারেরও বেশি শিল্পীকে আনা হবে৷ এই মুহূর্তে রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় হাজারেরও বেশি নথিভুক্ত লোকশিল্পীর মধ্যে ৮৫৯৬জন পান পেনশন। আর রিটেনার ফি পাওয়া শিল্পীর সংখ্যা এখনও পর্যন্ত প্রায় ৭৬হাজার। তথ্য ও সংস্কৃতি দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, আরও এক লক্ষ শিল্পী আসছেন এই প্রকল্পের আওতায়মুখ্যমন্ত্রীর এই ঘোষণার পর পেনশন এবং রিটেনার ফি প্রাপকের সংখ্যা একলাফে অনেকটাই বেড়ে যাবে।

আরও পড়ুন: পরাধীনতার অপর নাম সেন্সর বোর্ড!

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।