স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: রাজ্যের সরকারি বিদ্যালয়গুলোর শিক্ষকদের মত সরকার পোষিত বিদ্যালয়গুলোর শিক্ষকরা কেন কেরিয়ার অ্যাডভান্সমেনট স্কিমের সুবিধা পাবেন না এই নিয়ে রাজ্যের গ্র্যাজুয়েট ক্যাটাগরি শিক্ষকরা বৃহত্তর গ্র্যাজুয়েট টিচার অ্যাসোসিয়েশনের (বিজিটিএ) নেতৃত্বে মামলা করেছিলেন। বৃহস্পতিবার বিচারপতি মৌসুমি ভট্টাচার্যের বেঞ্চে এই মামলার দ্বিতীয় শুনানি হয়ে গেল। রাজ্যের তরফে আইনজীবী আরও দু সপ্তাহের সময় চাইলেন হলফনামা জমা দেওয়ার ক্ষেত্রে।

মাননীয়া বিচারপতি মহাশয়া তা মঞ্জুর করেন। এক সপ্তাহের মধ্যে শিক্ষকদের তরফে পাল্টা হলফনামা জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। আগামী ৯ মে থেকে ১৩ মের মধ্যে ফের এই মামলায় পুনরায় শুনানি হবে বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন- ২০০০ শূন্যপদে চাকরি দিচ্ছে SBI, বেতন শুরু ২৭ হাজার থেকে

কেরিয়ার অ্যাডভান্সমেনট স্কিমের সুবিধা সরকারি স্কুলের শিক্ষক শিক্ষিকারা পেয়ে থাকেন। চাকরির ৮, ১৬, এবং ২৫ তম বর্ষে তাঁরা এই সুবিধে পান। এই প্রকল্পের আওতায় উক্ত বছরগুলিতে তাঁদের বেতন বৃদ্ধি হয়। সেই সঙ্গেই তাঁদের গ্রেড পে বেড়ে যায়। কিন্তু একই সিলেবাস এবং একই বোর্ডের আওতায় থাকা স্বত্তেও সরকার পোষিত স্কুলের শিক্ষক – শিক্ষিকারা এই সুবিধা থেকে বঞ্চিত। এই বিষয়ে চ্যালেঞ্জ করে নিজেদের অধিকার বুঝে নিতে বৃহত্তর গ্র্যাজুয়েট টিচার অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যরা কলকাতা হাইকোর্টে মামলা করে। তাতেই এই রায় দিয়েছেন বিচারপতি।

আরও পডুন- ১ লক্ষ শূন্যপদে ফের নিয়োগ করবে রেল