তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়াঃ মারণ ভাইরাস করোনা সংক্রমণ রোধে সারা দেশ জুড়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর আহ্বানে সাড়া দিয়ে যখন ‘জনতা কার্ফিউ’তে স্বতঃস্ফূর্তভাবে মানুষ গৃহবন্দি। ঠিক তখন উল্টো ছবি ধরা পড়লো রাজ্যের মন্ত্রী অধ্যাপক শ্যামল সাঁতরার সৌজন্যে। আর যা নিয়েই শুরু হয়েছে রাজনৈতিক বিতর্ক।

ধারাবাহিক কর্মসূচীর অঙ্গ হিসেবে রাজ্যের মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা রবিবার তাঁর বাঁকুড়ার জয়পুরের ডিহা গ্রামের বাড়িতে ‘জনতার দরবারে’ অংশ নেন। অসংখ্য মানুষ এদিন তাদের অভাব অভিযোগ নিয়ে স্থানীয় বিধায়কের কাছে যান। কিন্তু সব কিছু ঠিক ঠাক থাকলেও করোনা সতর্কতা নিয়ে ‘জনতা কার্ফিউ’ এর দিনে একজন দায়িত্বশীল মন্ত্রীর জনতার দরবার নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

এবিষয়ে রাজ্যের মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা বলেন, মানুষের চাহিদা থাকলে তা আমরা অস্বীকার করতে পারিনা। সবসময় যথাসম্ভব সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করি, আজও তা করেছি। মন্ত্রীর এদিনের এই কর্মসূচীকে কটাক্ষ করেছে বিজেপি।

দলের বাঁকুড়ার সাংসদ ডাঃ সুভাষ সরকার এবিষয়ে বলেন, প্রধানণন্ত্রী নির্দেশিত জনতা কার্ফিউ কোন রাজনৈতিক কর্মসূচী নয়। করোনা প্রতিরোধে বিজ্ঞান সম্মত কর্মসূচী। যা সারা পৃথিবী মান্যতা দেয় বলেও তিনি জানিয়েছেন।