ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: এবার স্কুলছুট নাবালিকাদেরও এই খাদ্যসামগ্রী দেবে রাজ্য সরকার। এ নিয়ে বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে নারী ও শিশু কল্যাণ দফতর। আজ, বুধবার এই বণ্টন প্রক্রিয়া শুরু করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ১৭ তারিখের মধ্যে তা শেষ করতে হবে। এর ফলে গোটা রাজ্যে প্রায় ২৭ হাজার নাবালিকা উপকৃত হবে বলে মনে করছে দফতর।

১১ থেকে ১৪ বছর বয়সি, স্কুল ছেড়ে দেওয়া মেয়েদের পুষ্টিকর খাবার দেওয়ার জন্য আলাদা প্রকল্প তৈরি করা হয়েছে। এই নাবালিকাদের জন্য প্রতিদিন সাড়ে ৯ টাকা করে বরাদ্দ করা হয়েছে। খাবার মিলবে সপ্তাহে ছ’দিন। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির জন্য এখনও পর্যন্ত এই খাদ্যসামগ্রী বিলি করা সম্ভব হয়নি।

তাই এবার স্কুলছুট নাবালিকাদের বাড়িতেই চাল-ডাল পৌঁছে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হল। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, এই সব উপভোক্তাদের দু’কেজি চাল, ৩০০ গ্রাম মুসুর ডাল এবং এক কেজি করে ছোলা দেওয়া হবে। বণ্টনের কাজ করবেন অঙ্গনওয়াড়ি কর্মীরাই।

ওই নাবালিকাদের বাড়ির লোকজন সেন্টারে এসে খাদ্যসামগ্রী নিয়ে যেতে পারেন, অথবা কর্মীরা প্রয়োজনে তা বাড়িতে পৌঁছেও দিতে পারেন।

দফতরের মন্ত্রী শশী পাঁজা বলেন, মা ও শিশু’রা এই সুবিধা পেলে, এই সব নাবালিকারা বাদ যাবে কেন! তাই তাদেরকেও এই সামগ্রী দেওয়া হবে। উল্লেখ্য, স্কুলপড়ুয়া এবং অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রের মা-শিশুদের এতদিন চাল-আলু সহ অন্যান্য খাদ্যসামগ্রী দেওয়া হয়েছে।

বলে রাখি, এই খাদ্যসামগ্রীর কোনটি কত দামে কিনতে হবে, সেটাও বলে দেওয়া হয়েছে বিজ্ঞপ্তিতে। যেমন চাল কিনতে হবে ২৭ টাকা প্রতি কেজি, ডালের দাম ধরা হয়েছে ৯০ টাকা প্রতি কেজি এবং ৫৫-৬৫ টাকা প্রতি কেজি দরে কিনতে হবে ছোলা। সুষ্ঠুভাবে গোটা বণ্টন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার জন্য যাবতীয় পদক্ষেপ নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও