তনুজিৎ দাস, কলকাতা: নারদা কাণ্ডে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের উপর চাপ বাড়াতে  আবার রাজপথে নামছে রাজ্য বিজেপি৷ আগামী ১২ এপ্রিল ধর্মতলা থেকে রবীন্দ্র সদন পর্যন্ত ‘মহা মিছিলের’ ডাক দিয়েছে পদ্ম শিবির৷ সূত্রের খবর, সেই মিছিলের পরে রাজভবনে গিয়ে রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করবে রাজ্য বিজেপির এক প্রতিনিধি দল৷ দেওয়া হবে স্মারকলিপি৷নারদা স্টিং অপারেশনের ভিডিও-তে রাজ্যের যে সমস্ত মন্ত্রীদের দেখা গিয়েছে মূলত তাদের বরখাস্ত করার দাবিতেই রাজ্যপালের কাছে যাবেন তারা৷

এই বিষয়ে রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক তথা মুখপাত্র সায়ন্তন বসু বলেন, ‘‘রাজ্যপালের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে তাঁকে স্মারকলিপি দেওয়া হবে এবং যত দ্রুত সম্ভব রাজ্যের দাগি মন্ত্রীদের বরখাস্ত করার দাবি জানান হবে৷’’ মূলত রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষের নেতৃত্বেই রাজ্যপালের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে যাবেন প্রতিনিধি দলটি৷দিলীপ ঘোষ ছাড়াও  দলে থাকতে পারেন বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা, সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু, চন্দ্র বোস প্রমুখ৷১২ এপ্রিলের মহা মিছিলে মূলত নারদা স্টিং-কে হাতিয়ার করেই মাঠে নামতে চলেছে বিজেপি৷ কারণ রোজভ্যালি কাণ্ডে ইতিমধ্যেই তৃণমূলের দু’জন সাংসদ সিবিআই হেফাজতে রয়েছেন৷সারদা কাণ্ডেও তৃণূলের একাধিক নেতা-মন্ত্রী-সাংসদকে পাকড়াও করেছিল সিবিআই৷ যা দলের স্বচ্ছ ভাবমূর্তি অনেকাংশে নষ্ট করেছে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল৷  কিন্তু নারদা স্টিং নিয়ে এখনও তেমন ভাবে বড় কোনও ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয়নি ঘাস-ফুল শিবিরকে৷ওয়াকিবহাল মহলের মতে, তাই এবার এই কাঁটাতেও শাসকের রক্ত ঝরাতে রাজপথে নামছেন পদ্ম শিবির৷

সারদা-নারদা-রোজভ্যালিকে কেন্দ্র করে গত মাসেই রাজপথে নেমেছিল বিজেপি নেতৃত্ব৷ কলেজ স্কোয়্যার থেকে ধর্মতলার ওয়াই চ্যানেল পর্যন্ত হয়েছিল মিছিল৷ সেই মিছিলের পরেও রাজভবনে গিয়েছিল রাজ্য বিজেপির একটি প্রতিনিধি দল৷রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠী অনুপস্থিত থাকায় তাঁর অফিসেই স্মারকলিপি দিয়ে ফিরে আসতে হয়েছিল তাদের৷ তাই এবার রাজ্যপালের হাতে স্বারক লিপি দিয়ে নারদ স্টিং-য়ে উপস্থিত মন্ত্রীদের বরখাস্তের দাবী জানাবেন বঙ্গ পদ্ম শিবিরের নেতারা৷