নতুন ব্যবসা শুরু করতে চাইছেন, অথচ বিনিয়োগের জন্য মূলধনের অভাব? এবার সেই সমস্যা মিটতে চলেছে৷ আপনাকে সাহায্য করতে এগিয়ে আসছে হোয়াটসঅ্যাপ৷ ব্যাপারটা বুঝলেন না?

সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুকের আরেকটি প্ল্যাটফর্ম হোয়াটসঅ্যাপ নতুন মহিলা ব্যবসায়ীদের সাহায্য করার জন্য উদ্যোগ নিয়েছে৷ নীতি আয়োগের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে হোয়াটসঅ্যাপ এই প্রকল্প চালু করতে চলেছে৷ ইতিমধ্যেই হোয়াটসঅ্যাপের তরফ থেকে নতুন মহিলা ব্যবসায়ীদের উদ্দ্যেশ্য করে একটি বিবৃতি দেওয়া হয়েছে, যেখানে বলা হয়েছে বার্ষিক হারে একটি ইভেন্ট চালু করবে হোয়াটসঅ্যাপ৷

এই ইভেন্টে থাকবে বেশ কিছু কর্মসূচি, যেখানে নতুন মহিলা ব্যবসায়ীদের যোগ দিতে হবে৷ সেই কর্মসূচি যে সবচেয়ে বেশি দ্রুত পালন করতে পারবে, তাঁকে শীর্ষ স্থান দেওয়া হবে৷

আরও পড়ুন : অবশেষে বাড়ছে বেতন, ১১০০ কোটি টাকা ব্যায় ভার বাড়ছে মমতা সরকারের

নয়াদিল্লিতে এক অনুষ্ঠানে এই বিষয়ে বিস্তারিত বলেছেন, হোয়াটসঅ্যাপের গ্লোবাল হেড উইল ক্যাথকার্ট৷ তিনি জানান, নীতি আয়োগের সঙ্গে কাজ করতে পারা হোয়াটসঅ্যাপের কাছে গর্বের বিষয়৷ ভারতে যে সব নতুন মহিলা ব্যবসায়ীরা স্বাধীনভাবে কাজ শুরু করতে চান, তাদের স্বাগত৷ বিনিয়োগের মূলধন যোগানোর রাস্তা খুলে দিতে চায় হোয়াটসঅ্যাপ৷ কারণ এই ছোট ছোট ব্যবসাগুলিই দেশের অর্থনীতির ভিত্তিকে সুদৃঢ় রাখে৷

হোয়াটসঅ্যাপ জানাচ্ছে নীতি আয়োগের উইমেন ট্রান্সফর্মিং ইণ্ডিয়া অ্যাওয়ার্ডস, ২০১৯-এর বিজেতা পাবেন এক লক্ষ ডলার পুরস্কার৷

আরও পড়ুন : অনলাইনে কেনাকাটায় সাবধান, হারাতে পারেন লক্ষাধিক টাকা

এই ডব্লুটিআই অ্যাওয়ার্ডস, যা ভারতের নীতি আয়োগের সহযোগিতা নিয়ে তৈরি হয়েছে, এতে যুক্ত রয়েছে রাষ্ট্রসংঘও৷ যারা নিয়মিত মহিলাদের স্বাধীনভাবে বেঁচে থাকাটা সুনিশ্চিত করছে৷

উল্লেখ্য, ভারতের ডিজিটাল অর্থনীতির অগ্রগতিতে বড়সড় ছাপ রেখেছে নতুন ব্যবসায়ীরা৷ তবে তার মধ্যে দেশের মহিলা ব্যবসায়ীদের সংখ্যা বেশ কম৷ ৫৮.৫ মিলিয়ন নতুন ব্যবসায়ীদের মধ্যে মাত্র ১৪ শতাংশ নতুন মহিলা ব্যবসায়ী৷ তাদের তুলে আনতেই হোয়াটসঅ্যাপের এই বিশেষ ভাবনা বলে জানা যাচ্ছে৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।