নয়াদিল্লি: কম বিনিয়োগে পেতে চান প্রচুর টাকা? তবে এই সুযোগ কেবল আপনারই জন্যে। পোস্ট অফিসের সাহায্যেই মিলতে পারে প্রতি মাসে এই মোটা টাকা কামানোর সুযোগ। পোস্ট অফিসের থেকে ফ্যাঞ্চাইজি নিয়ে আপ্নিও পারেন নিজস্ব পোস্টাল ব্যবসা শুরু করতে, যার জন্য আপনার লাগবে মাত্র ৫০০০ টাকা।

বর্তমানে গোটা দেশে প্রায় ১.৫৫ লাখ পোস্ট অফিস, কিন্তু তা সত্ত্বেও সব জায়গায় গ্রাহকদের কাছে পৌঁছানো সম্ভব হয় না।

আর এই কারণেই সেসব মানুষের কাছে পৌঁছাতে পোস্ট অফিস তাঁর ফ্যাঞ্চাইজি দিয়ে থাকে। আর এই সুযোগটি ব্যবহার করেই আপনি আপনার স্বপ্ন পূরণের পথে যাত্রা করতে পারেন।

সাধারনত দুই ধরনের ফ্রাঞ্চাইজি হয়ে থাকে-

প্রথমটি হল আউটলেট ফ্রাঞ্চাইজি এবং দ্বিতীয়টি পোস্টাল ফ্র্যাঞ্চাইজি। এর মধ্যে যেকোনো একটি আপনি বেছে নিতে পারেন। দেসের অনেক জায়গায় পোস্ট অফিসের প্রয়োজন হলেও সেখানে পোস্ট অফিস খোলা সম্ভব হয়না, সেইসব ক্ষেত্রে কাজ দেয় এই আউটলেট ফ্রাঞ্চাইজি। এছাড়াও গ্রামে বা শহরেও অনেক এজেন্ট পোস্টাল স্ট্যাম্প বা ষ্টেশনারী বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেন, তাকেই বলা হয়ে থাকে পোস্টাল এজেন্টস ফ্র্যাঞ্চাইজি।

ফ্রাঞ্চাইজি নেওয়ার প্রাথমিক শর্ত-

ব্যক্তির বয়স অবশ্যই ১৮ বছরের অধিক হতে হবে। যেকোনো ভারতীয় নাগরিকই এই পোস্ট অফিসের ফ্র্যাঞ্চাইজি নিতে পারেন। তাঁর কাছে যেকোনো বৈধ স্কুল থেকে ক্লাস ৮ পাশ এর শংসাপত্র থাকা বাধ্যতামূলক। প্রথমেই আবেদন পত্র ভরে তা জমা করতে হবে এবং নির্বাচিত হলে তবে পোস্ট অফিসের সনে মৌ সাক্ষর করতে হবে।

সিকিউরিটির মানি হিসাবে ৫০০০ টাকা জমা করতে হবে-

ফ্রাঞ্চাইজি নিতে গেলে আপনাকে অবশ্যই নিরাপত্তা জনিত আমানত হিসাবে ৫০০০ টাকা জমা করতে হবে। একবার ফ্রানাচাইজি পেয়ে গেলে তারপর আপনার কাজের হিসাবে আপনি কমিশন পাবেওন, যা মাসে হাজারের বেশিও হতে পারে।

পোস্টাল এজেন্ট হিসাবে পৌঁছে যান মানুষের ঘরে ঘরে-

পোস্ট অফিস থেকে প্রাপ্ত সুবিধা যেমন স্ট্যাম্প, স্পিড পোস্ট, আর্টিকলস, ষ্টেশনারী, মানি অর্ডার এর বুকিং ইত্যাদির ব্যবস্থার সুযোগ সুবিধা আপনাকেই তাদের কাছে দিতে হবে। যাতে পোস্ট অফিসের সব সুবিধাই বাড়ি বাড়ি পৌঁছয়।

ফর্ম দিয়েই হবে সুচনা-

ফ্রাঞ্চাইজি নেওয়ার জন্য প্রথমেই আপনাকে আবেদন জানাতে হবে। তার জন্য
https://www.indiapost.gov.in/VAS/DOP_PDFFiles/Franchise.pdf এই অফিসিয়াল লিঙ্কটিতে গিয়ে সেখানে প্রাপ্ত ফর্মকে ডাউনলোড একটি তা ফিল আপ করতে পারেন। এখানে বলে দেওয়া ভালো, বাছাই হওয়া ব্যক্তিকে অবশ্যই একটি চুক্তিপত্রে সই করতে হবে, তবেই তিনি গ্রাহকদের পর্যন্ত পৌঁছানোর অনুমতি পাবেন।

কিন্তু রোজগার করবেন কীভাবে?
এক্ষেত্রে পুরোপুরি আপনার উপার্জন নির্ভর করে আপনার প্রাপ্ত কমিশনের উপর। পোস্ট অফিস থেকে প্রাপ্ত সমস্ত জিনিস ও সুবিধাগুলি দেওয়া হয়, যার উপরই এই কমিশন দেওয়া হয়ে থাকে। চুক্তির ক্ষেত্রে পতমেই সেই কমিশনের উল্লেখ করে দেওয়া থাকে।

১। রেজিস্টার্ড আর্টিকলস এর বুকিং এ ৩ টাকা
২। স্পীড পোস্ট আর্টিকলস এর বুকিং এ ৫ টাকা
৩। ১০০ থেকে ২০০ টাকার মানি অর্ডারের বুকিং এ ৩.৫০ টাকা
৪। প্রতিমাসে ১০০০ এর বেশি স্পীড পোস্ট ও রেজিস্ট্রির বুকিং এর উপর উপর মিলবে অতিরিক্ত ২০ শতাংশ কমিশন
৫। পোস্টাল স্ট্যাম্প, পোস্টাল ষ্টেশনারী এবং মানি অর্ডার ফরমের বিক্রির বিক্রয়মুল্যের উপর মিলবে ৫ শতাংশ
৬। রেভিনিউ স্ট্যাম্প, সেন্ট্রাল রিক্রুটমেন্ট ফি স্ট্যাম্প ইত্যাদির বিক্রি সমেত আরও রিটেল সার্ভিসের দ্বারা পোস্টাল ডিপার্টমেন্ট এর যা আয় হবে তাঁর ৪০ শতাংশ।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।