নয়াদিল্লি: রাজনীতিতে তারকা চমক নতুন নয়। জাতীয় রাজনীতিতে বহু সেলেব্রিটিকেই দেখা গিয়েছে নেতা হতে। এবার লোকসভা নির্বাচনেও এমন চমক ছিল বেশ কিছু।

হেমা মালিনী কিংবা কিরণ খের আগে থেকেই ছিলেন রাজনীতিতে। আর ভোটের আগে রাজনীতিতে আসেন উর্মিলা মাতোন্ডকর, সানি দেওলের মত তারকারা।

দেখে নেওয়া যাক ভোটের ফলাফলে কোথায় অবস্থান তাঁদের:

বিজেপি:

গৌতম গম্ভীর- ইস্ট দিল্লি থেকে জয়ী প্রাক্তন ক্রিকেটার গৌতম গম্ভীর। হারিয়ে দিয়েছেন আপ প্রার্থী অতীশী মারলেনাকে। তাঁর প্রাপ্ত ভোট ৬ লক্ষ ৯৬ হাজার ১৫৬।

সানি দেওল: পঞ্জাবের গুরুদাসপুর কেন্দ্র জয়ী হয়েছেন আভিনেতা সানি দেওন। হারিয়ে দিয়েছেন কংগ্রেস প্রার্থী সুনীল কুমার জাখারকে। প্রাপ্ত ভোট ৫ লক্ষ ৫৮ হাজার। ভোটের আগেই বিজেপিতে যোগ দেন তিনি।

মনোজ তিওয়ারি: নর্থ ইস্ট দিল্লি থেকে জয়ী গায়ক-অভিনেতা মনোজ তিওয়ারি। কংগ্রেস প্রার্থী তথা দিল্লির প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী শিলা দীক্ষিতকে হারিয়েছেন তিনি। প্রায় ৩ লক্ষের বেশি ভোটের মার্জিনে জয়ী হন তিনি।

রবি কিষেণ: যোগী আদিত্যনাথের কেন্দ্র গোরক্ষপুর থেকে জয়ী হয়েছেন ভোজপুরী অভিনেতা রবি কিষেণ। সপার প্রার্থীকে তিন লক্ষ ভোটে হারিয়ে জয়ী হয়েছেন তিনি।

হেমা মালিনী: আগেও বিজেপির মথুরার সাংসদ ছিলেন তিনি। প্রায় সাত লক্ষ ভোটে পেয়ে এবারও জিতলেন মথুরা কেন্দ্র থেকে। একসময়ের জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী রাজনীতিতেও শক্ত করেছেন নিজের জায়গা।

বাবুল সুপ্রিয়: আসানসোলে আর এক তারকা মুনমুন সেনকে হারিয়ে জয়ী হয়েছেন বাবুল সুপ্রিয়। প্রায় ২ লক্ষ ভোটের মার্জিনে মুনমুনকে হারিয়েছেন গায়ক বাবুল। গত লোকসভা নির্বাচনেই রাজনীতিতে পা রাখেন তিনি। জিতেছিলেন প্রথমবারেই। ছিলেন মোদীর মন্ত্রিসভার প্রতিমন্ত্রী।

হংস রাজ হংস: সাড়ে আট লক্ষ ভোটে জয়ী হয়েছেন নর্থ ওয়েস্ট দিল্লি থেকে। আপ প্রার্থীর থেকে তফাৎ অন্তত সাড়ে পাঁচ লক্ষ। এই গায়কও ভোটের আগেই যোগ দেন বিজেপিতে।

কিরন খের: ৫০ শতাংশ ভোট পেয়ে চণ্ডীগড় থেকে জয়ী অভিনেত্রী কিরণ খের।

কংগ্রেস:

উর্মিলা মাতোন্ডকর: রঙ্গিলা গার্লকে রাজনীতিতে এনে বড় চমক দিয়েছিল কংগ্রেস। প্রচারেও চমক দিচ্ছিলেন তিনি। কিন্তু শেষ রক্ষা হল না। পাঁচ লক্ষ ভোটে বিজেপির গোপাল শেট্টির কাছে হেরে গেলেন অভিনেত্রী। মুম্বই নর্থ লোকসভা কেন্দ্র থেকে লড়েছিলেন।

বীজেন্দ্র সিং: ভোটে হেরে গেলেন অলিম্পিকে ব্রোঞ্জ জয়ী বক্সার বিজেন্দ্র সিং।

তৃণমূল:

মুনমুন সেন: আসানসোলে বাবুল সুপ্রিয়র কাছে হেরে গেলেন অভিনেত্রী মুনমুন সেন। গত লোকসভা নির্বাচনে রাজনীতিতে পা রাখেন তিনি। গতবার জিতলেও এবার হেরে গেলেন ২ লক্ষ ভোটের মার্জিনে।

নুসরত জাহান: বসিরহাট কেন্দ্র থেকে বিপুল ভোটে জয়ী হয়েছেন সদ্য রাজনীতিতে আসা জনপ্রিয় অভিনেত্রী নুসরত জাহান। বিজেপির সায়ন্তন বসুকে হারিয়ে দিয়েছেন প্রায় সাড়ে তিন লক্ষ ভোটে।

মিমি চক্রবর্তী: যাদবপুর কেন্দ্র থেকে জয়ী তৃণমূল প্রার্থী তথা টলিউডের আর এক জনপ্রিয় অভিনেত্রী মিমি। বিজেপির অনুপম হাজরার থেকে আড়াই লক্ষ বেশি ভোট পেয়েছেন তিনি।

শতাব্দী রায়: সাংসদ ছিলেন আগেই। এবারও তৃণমূল প্রার্থী হিসেবে জয় পেলেন একসময়ের জনপ্রিয় অভিনেত্রী শতাব্দী। হারিয়ে দিয়েছেন বিজেপির দুধকুমার মন্ডলকে।

দীপক অধিকারী (দেব): ঘাটাল থেকে জয়ী তৃণমূল প্রার্থী দেব। টলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতাদের মধ্যে একজন তিনি। বিজেপির ভারতী ঘোষকে এক লক্ষ ভোটে হারিয়েছে জয়ী হয়েছেন দেব।