স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: অন্ধকারে রাজ্যে কংগ্রেস-সিপিএম জোটের ভবিষ্যৎ৷ আপাতত জোটের বল বিধানভবনের নেতাদের কোর্টে ঠেলেছেন সীতারাম ইয়েচুরি৷ যদিও আলিমুদ্দিনের নেতাদের মুখে ‘আলোচনা’র কথা৷ ৷ এদিন বাংলায় বাম-কংগ্রেস জোট নিয়ে সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র বলেন, ‘আসন্ন লোকসভা
নির্বাচনে সিপিএম-কংগ্রেস জোট নিয়ে আলোচনা চলছে৷!’তবে স্বীকার করে নিয়েছেন জট দেখা দিয়েছে গতবার দু’দলের জেতা ৬টি আসনের সমঝোতা নিয়ে৷

সূর্যকান্ত মিশ্র বলেন, ‘‘আমরা চাইনা এখানে (পশ্চিমবঙ্গে) কংগ্রেসের সঙ্গে আমাদের লড়াই হোক৷ জেতা আসনগুলিতে কংগ্রেস যেখানে জিতেছেন আমরা সেখানে প্রার্থী দিতে চাই না৷ আমাদের দু’জন সাংসদ আছেন ওই ছয়টা আসনের মধ্যে৷ আমরা আশা করি মুর্শিদাবাদ ও রায়গঞ্জে কংগ্রেস প্রার্থী দেবেন না৷ সমঝোতা শুরু করতে হলে, আমরা যেখানে জিতেছি তা দিয়েই জোটের আলোচনা শুরু করতে হবে৷ কিন্তু যদি বলেন যে, রায়গঞ্জে মোহাম্মদ সেলিমকে এবং মুর্শিদাবাদ আসন ছেড়ে দিতে হবে, এভাবে আলোচনা এগোবে না৷ তৃণমূল ও বিজেপির উভয়ের বিরুদ্ধে একত্রিত করতে সব শক্তিকে নিয়ে কিভাবে এখানে তা কার্যকর করা যায়, তা দেখতে হবে৷’’

অন্যদিকে, জোট নিয়ে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সৌমেন মিত্র জানিয়েছেন, ‘‘বামফ্রন্টের সঙ্গে আলোচনা চলছে, এখনও আলোচনা শেষ হয়নি। রায়গঞ্জ এবং মুর্শিদাবাদ আসন দুটি নিয়ে সমস্যা দেখা দিয়েছে৷ যদিও সেই দুটো আসন সিপিআইএম এর জেতা প্রার্থী ছিলেন।কিন্তু গত পাঁচ বছরের যে ট্রেন্ড দেখা যাচ্ছে তাতে লোকে সিপিএম ছেড়ে অন্য দলে যাচ্ছে৷ সিপিআইএম-এ যাওয়ার প্রবণতা নেই। সেই ক্ষেত্রে ওই মার্জিনাল আসন দুটো সিপিএমকে দিলে তারা হেরে যাবে।’’

আরও পড়ুন: বাংলায় বিজেপি ৪২ এ শূন্য পাবে: বিস্ফোরক মন্তব্য মমতার মন্ত্রীর

সোমেনবাবুর দাবি, ‘‘আমাদের মূল উদ্যেশ্য বিজেপি ও তৃনমূলের স্বৈরাচারকে ঠেকানো।দুটো আসন তাদের হাতে তুলে দিয়ে সেই স্বৈরাচার কে বাড়ানোর কোনও মানে হয় না। জোট এই জায়গাটায় আটকে আছে। প্রতিদিন আমাদের যে সমস্যা তা কতটা এগিয়েছে আমি তা আমাদের সর্বভারতীয় সভাপতি রাহুল গান্ধীকে জানাচ্ছি।আমরা আশা করছি এক দুদিনের মধ্যে এর একটা সমস্যা সমাধান হয়ে যাবে।’’

সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি সোমবার কেন্দ্রীয় কমিটির সিদ্ধান্তের কথা সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন৷ পশ্চিমবঙ্গে কংগ্রেসের জেতা ৪টি আসন রয়েছে – মালদা দক্ষিণ, মালদা উত্তর (তবে এই কেন্দ্রের সাংসদ মৌসম বেনজির নুর ইতিমধ্যেই তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন৷) জঙ্গিপুর, বহরমপুর এবং সিপিএমের জেতা দু’টি আসন –রায়গঞ্জ এবং মুর্শিদাবাদ৷ এই ৬টি আসনেই কোনও প্রতিদ্বন্দ্বিতা চাইছে না সিপিএম৷ এখন জোটের জট বেঁধে আছে দু’টি আসন নিয়ে–রায়গঞ্জ এবং মুর্শিদাবাদ৷

দড়ি টানাটানি চলছে৷ তবে সোমবার দিল্লিতে জোটের আলোচনা শেষ করে বাইরে বেড়িয়ে কংগ্রেস সাংসদ প্রদীপ ভট্টাচার্য জানিয়েছিলেন ‘সব শেষ’৷ জোটের ভবিষ্যৎআদৌ কি দিনের আলো দেখবে? সময়ের গর্ভে লুকিয়ে উত্তর৷