নয়াদিল্লি: যাঁর বিরুদ্ধে আইপিএল স্পট-ফিক্সিং মামলার তদন্ত চলছে, তিনিই কি না বিশ্বক্রিকেটকে দুর্নীতিমুক্ত করার চ্যালেঞ্জ নিচ্ছেন! শুনতে অবাক লাগলেও এমনই প্রতিশ্রুতি শোনা গেল আইসিসি-র নবনিযুক্ত চেয়ারম্যান তথা নির্বাসিত বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট নারায়ণস্বামী শ্রীনিবাসনের গলায় ৷

১ জুলাই থেকে আইসিসি-র প্রথম চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব নেওয়া শ্রীনি এক সাক্ষাৎকারে জানান, ‘ক্রিকেটকে একশো শতাংশ পরিচ্ছন্ন রাখতে আইসিসি লড়াই চালিয়ে যাবে ৷ প্রয়োজনে নিয়ম সংশোধন করা হবে ৷ এই মুহূর্তে আমরা ঠিক পথেই  এগোচ্ছি ৷ কিন্তু, ধাপে  ধাপে আমাদের এগোতে হবে ৷ আইসিসি-তে প্রচুর বুদ্ধিমান ব্যক্তি রয়েছেন, যারা ক্রিকেটকে সম্পূর্ণ দুর্নীতিমুক্ত করতে পারবে ৷’ আইসিসি-র অ্যান্টি-করাপশন অ্যান্ড সিকিউরিটি ইউনিট-এর হাতে কিন্তু পুরোপুরি ক্ষমতা দেওয়া হয়নি ৷ ফলে, ক্রিকেটারদের নিয়ন্ত্রণ করার ক্ষমতা তাদের হাতে নেই ৷

ষষ্ঠ আইপিএল-এ স্পট-ফিক্সিং কাণ্ডে শ্রীনি-সহ ১৩ জনের নতুন করে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট ৷ স্পট-ফিক্সিং কাণ্ডে বিসিসিআই প্রেসিডেন্টের পদ থেকে সরে দাঁড়াতেও হয় শ্রীনিকে ৷ এ ব্যাপারে অবশ্য কোনও মন্তব্য করতে চাননি তামিল ব্রাহ্মণ ৷ তিনি বলেন, ‘বিষয়টি আদালতের বিচারাধীন ৷ তাই এ  ব্যাপারে কোনও মন্তব্য করব না ৷  তবে, একটা কথা বলতে পারি, ক্রিকেটকে কালিমালিপ্ত করার মতো কোনও কাজ আমি করিনি ৷’