শ্রীনগর: দক্ষিণ কাশ্মীরে বন্যার সতর্কতা৷ বৃহস্পতিবার ঝিলম নদী বইছে ১৮ ফুটের ওপর দিয়ে৷ যা বিপদসীমা ছাড়িয়েছে বলে জানাচ্ছে স্থানীয় আবহাওয়া দফতর৷ আগামী ২৪ ঘন্টায় আবহাওয়ার পরিস্থিতি আরও খারাপ হলে স্থানীয় বাসিন্দাদের জন্য সতর্কতা জারি করা হবে বলে জানানো হয়েছে৷ তবে হাওয়া অফিস জানাচ্ছে ভারি বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে উপত্যকায়৷

গত দুদিন ধরেই ফুঁসছে ঝিলম নদী৷ কারণ টানা বৃষ্টি চলছে কাশ্মীরের একাংশে৷ অন্যদিকে সোনমার্গে চলছে ভারি তুষারাপাত৷ সব মিলিয়ে বৃষ্টি-বরফে নাজেহাল কাশ্মীর৷ সংবাদসংস্থা আইএএনএস জানাচ্ছে, শুধু ঝিলম নয়, উপত্যকার বেশিরভাগ পাহাড়ি নদীরই জলের উর্দ্ধসীমা বেড়েছে৷ বিপদসীমা দিয়ে বইছে বেশ কয়েকটি নদীর জল৷ বিশেষত এই পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে দক্ষিণ কাশ্মীরে৷

সংবাদ সংস্থা সূত্রে খবর, কিছু জায়গায় নতুন করে বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হওয়ায় কয়েকটা অস্থায়ী ব্রিজ ভেঙে গিয়েছে৷ সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ বান্দিপোরা ও তাংগমার্গ৷ বন্যার জলে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে বারামুল্লা জেলার আপেল বাগানও৷

অতিরিক্ত তুষারাপাতে মৃত্যু হয়েছে ১০০টি ভেড়ার৷ খোলা আকাশের তলায় থাকায় ঠাণ্ডায় এদের মৃত্যু হয়েছে বলে খবর৷ বুধবার রাতেই বজ্রবিদ্যুতে ভেড়াগুলির মৃত্যু হয়৷ সোনমার্গ ও বালতাল থেকে ভেড়া মৃত্যুর খবর মিলেছে৷

স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে নদী তীরবর্তী এলাকাগুলি থেকে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে বাসিন্দাদের৷ শ্রীনগরের নীচু এলাকা থেকেও সরানো হচ্ছে বাসিন্দাদের৷ আবহাওয়া দফতর বলছে গত ২৪ ঘণ্টায় শ্রীনগরে ৩৯.২ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে৷ কাজিগুন্দ ও পহেলগাঁওতে ৫০.৪ মিমি, কুপওয়াড়াতে ৪০.২ মিমি, গুলমার্গে ৬১.০ মিমি ও কোকেরনাগে ৩২.০ মিমি বৃষ্টি হয়েছে বলে খবর৷

এদিকে, জুন মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহেও যখন বর্ষার আশানুরূপ অগ্রগতি নেই৷ তখন বরফ পড়ছে কাশ্মীরে৷ উত্তর, মধ্য, পশ্চিম ও পূর্ব ভারতে গরমের দাপট অব্যাহত৷ কোনও কোনও জায়গায় পারদ ৫০ এর কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েছে৷ লু বইছে উত্তর ভারতে৷ এক পশলা বৃষ্টির আশায় চাতক পাখির মতো আকাশে চেয়ে সবাই৷ আর ঠিক উল্টো ছবি জম্মু কাশ্মীরে৷ বুধবার উপত্যকার বেশ কিছু অংশে ভালো তুষারপাত ও বৃষ্টি হয়েছে৷ জুন মাসে কাশ্মীরে সাধারণত বরফ পড়ার সময় নয়৷ ফলে এই ঘটনায় আবহবিদরাও ধন্দে পড়ে গিয়েছে৷

বুধবার কাশ্মীরের সোনমার্গ, গুরেজ এবং পীর কি গলির মতো জায়গা সাদা তুষারে ঢেকে যায়৷ আর কাশ্মীরের অপেক্ষাকৃত নীচু এলাকায় গত ২৪ ঘণ্টা ধরে প্রবল বৃষ্টি হয়৷ হাওয়া অফিস ভূস্বর্গে বৃষ্টিপাতের সঙ্গে আবহাওয়া উন্নতিরও পূর্বাভাস দিয়ে রেখে ছিল৷ জানিয়েছিল, বৃষ্টিপাত চলবে৷ তবে বুধবার রাতের পর আবহাওয়ার উন্নতি হবে৷ বৃহস্পতিবার থেকে রোদ ঝলমলে আকাশ দেখা যাবে৷ তবে পূর্বাভাস মেলেনি৷