কলম্বো: শ্রীলঙ্কার মাধ্যমে ভারতকে চাপে ফেলার চেষ্টায় কার্যত ধাক্কা খেল চিন৷ মঙ্গলবার চিনের সাহায্যে হম্বনটোটা বন্দর বিস্তৃত করার পরিকল্পনায় শ্রীলঙ্কা পরিবর্তন আনে বলে জানা যায়৷ শ্রীলঙ্কা মন্ত্রীসভার এই সিদ্ধান্ত ভারতের কাছে যে স্বস্তির খবর তা বলাই বাহুল্য৷ আর সিদ্ধান্ত যে শ্রীলঙ্কাকে তার জনগণের চাপেই নিতে হয়েছে এমনও শোনা যাচ্ছে৷

আরও পড়ুন: চিনা দ্রব্য বহিষ্কারে মেগা প্ল্যান করছে এই সংগঠন

সূত্রের খবর, সাম্প্রতিককালে শ্রীলঙ্কার জনগণ এই অভিযোগ তুলেছিল যে শ্রীলঙ্কা তার হম্বনটোটা বন্দর চিনের হাতে তুলে দিচ্ছে৷ আর তার জেরে শুরু হয় বিক্ষোভ৷ স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে এই বিক্ষোভে সামিল হতে থাকে বৌদ্ধ ভিক্ষুরাও৷ বারতকে সমস্যা ফেলতে শ্রীলঙ্কার হম্বনটোটা বন্দরে নজর পড়েছিল চিনের৷ এখানে সেনা মোতায়েন বা তাদের বিচরণে সুবিধা হত বলেই মনে করা হচ্ছে৷ এর জন্য চিনের এক কোম্পানি ১.৫ আরব ডলার বিনিয়োগ করার কথাও ভেবেছিল৷ কিন্তু শ্রীলঙ্কার স্থানীয় বাসিন্দাদের বিক্ষোভের জন্য সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হওয়ার পথে বাধার সৃষ্টি হয়েছে৷ শ্রীলঙ্কা এই শেষ মুহূর্তের সিদ্ধান্তে ভারতের পাশাপাশি জাপান এবং আমেরিকার চিন্তাও যে কিছুটা দূর হয়েছে তা বলাই যায়৷

আরও পড়ুন: চিনা ভূখণ্ডে ভারতীয় সেনারাই প্রবেশ করেছে: চিনা বিদেশমন্ত্রক

প্রসঙ্গত, ২০১৪সালে চিনা সাবমেরিন কলম্বোয় প্রবেশ করলে তা ভারতের জন্য বিপজ্জনক হয়ে ওঠে৷ তবে মে মাসে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী শ্রীলঙ্কা সফরে গেলে, চিনকে তখন সাবমেরিন রাখার অনুমতি খারিজ করে দেয় শ্রীলঙ্কা৷ তখন থেকেই বেড়ে গিয়েছে চিনের চিন্তা৷