বাংলাদেশের বিরুদ্ধে সিরিজ জয়ের পর ট্রফি হাতে গুনতিলকে (ফাইল)৷ ছবি-গুনতিলকে টুইটার

কলম্বো: বল বিকৃতির দায়ে শ্রীলঙ্কার টেস্ট অধিনায়ক দীনেশ চাঁদিমল, কোচ চন্দিকা হাতুরুসিংহে ও টিম ম্যানেজার আসাঙ্কা গুরুসিংহকে আগেই নির্বাসিত করেছে আইসিসি৷ এবার আচরণবিধি ভঙ্গের দায়ে ওপেনার দনুষ্কা গুনতিলকেকে ছ’ম্যাচের জন্য নির্বাসনে পাঠাল শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড৷

গত এক বছরে এই নিয়ে তৃতীয়বার শৃঙ্খলাভঙ্গের দায়ে পড়লেন ২৭ বছর বয়সি বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান৷ যাঁ বড়সড় মূল্য চোকাতে হল তাঁকে৷ দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টেস্ট চলাকালীন শৃঙ্খলা জনিত কারণে অনির্দিষ্ট কালের জন্য গুনতিলকেকে মাঠের বাইরে রাখার সিদ্ধান্ত নেয় শ্রীলঙ্কা বোর্ড৷ যে কারণে ফর্মে থাকা সত্ত্বেও তাঁকে একদিনের সিরিজের দলে বিবেচনা করা হয়নি৷

আরও পড়ুন: শ্রীলঙ্কাকে হোয়াইটওয়াশ করল ভারত

তন্দন্ত প্রক্রিয়া শেষে শুক্রবার শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের তরফে তরুণ ওপেনারের গুনতিলকের বিরুদ্ধে নিজেদের পদক্ষেপের কথা জানিয়ে দেওয়া হয়৷ শাস্তিমূলক ব্যবস্থা হিসাবে তাঁকে ছ’টি আন্তর্জাতিক ম্যাচে জাতীয় দল থেকে দূরে সরিয়ে রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়৷

প্রাথমিকভাবে শৃঙ্খলাভঙ্গের কথা জানানো হলেও পরে ধর্ষণের মতো গুরুতর অপরাধে গুনতিলকের জড়িত থাকার কথা শোনা যায়৷ যদিও পুলিশের তরফে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয় যে, এমন কোনও অভিযোগ নেই তারকা ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে৷

আরও পড়ুন: কোচের বিরুদ্ধে আড়াই বছর ধরে ধর্ষণের অভিযোগ

শেষমেশ সামনে আসে সত্যিটা৷ টিম হোটেলে গুনতিলকের রুমে নরওয়ের এক তরুণীকে ধর্ষণ করে শ্রীলঙ্কান তারকার ব্রিটিশ পাসপোর্টধারী এক বন্ধু৷ নরওয়েন তরুণীর অভিযোগ ক্রমে জন্মসূত্রে শ্রীলঙ্কান সন্দীপ সেলিয়া নামক গুনতিলকের বন্ধুকে গ্রেফতার করে পুলিশ৷

অত্যন্ত নিন্দনীয় এই ঘটনায় গুনতিলকে সরাসরি জড়িত না থাকলেও শ্রীলঙ্কান বোর্ড বিষয়টিকে কোনও মতেই লঘু করে দেখতে রাজি ছিল না৷ তাছাড়া শ্রীলঙ্কান বোর্ডের কোড অফ কন্ডাক্ট অনুযায়ী এমন ঘটনায় জড়িয়ে পড়া অনৌতিক হিসাবেই চিহ্নিত হয়৷

আরও পড়ুন: ধর্ষণে যুক্ত থাকার অভিযোগে নির্বাসিত শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটার

সুতরাং আচরণবিধি ভঙ্গের দায়ে তিন ম্যাচ সাসপেন্ড করা হয় গুনতিলকেকে৷ এক বছরের নির্ধারিত সময়সীমার মধ্যে দ্বিতীয়বার আচরণ বিধি ভেঙে নির্বাসিত হওয়ার শাস্তিস্বরূপ বাকি তিন ম্যাচ সাসপেন্ড হতে হয় তাঁকে৷ গত বছর ১৮ অক্টোবর আচরণবিধি লঙ্ঘনের জন্য ছ’ম্যাচ নির্বাসিত করা হয়েছিল গুনতিলকেকে৷ পরে শাস্তি কমিয়ে তিন ম্যাচ করা হয়৷

গতবার গুনতিলকের কেন্দ্রীয় চুক্তির ২০ শতাংশ আর্থিক জরিমানা করা হয়েছিল৷ এবারও একই রকম আর্থিক শাস্তিবিধানও করা হয়৷ দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টেস্টের কোনও ম্যাচ ফি পাবেন না তিনি৷ এমন কি ম্যাচ চলাকালীন কোনও বোনাস অর্থও দাবি করতে পারবেন না গুনতিলকে৷

আরও পড়ুন: সিরিজ জয়ের দোরগোড়ায় শ্রীলঙ্কা

উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, গত দশ মাসে এই নিয়ে তিনবার শ্রীলঙ্কান বোর্ডের আচরণবিধি ভাঙলেন দনুষ্কা৷ ভারতের বিরুদ্ধে সিরিজ চলাকালীন সারা রাত পার্টি করে অনুশীলনে গড়হাজির হওয়া ছাড়াও মীরপুরে ত্রিদেশিয় সিরিজ চলাকালীন কোড অফ কন্ডাক্ট ভেঙে সতর্কিত হয়েছিলেন গুনতিলকে৷