কলম্বো : আরও একমাস জরুরি অবস্থা জারি থাকবে শ্রীলঙ্কায়৷ বুধবার এই ঘোষণা করল রাষ্ট্রপতি মৈথিরিপলা সিরিসেনা৷ ইস্টার সানডেতে রক্তাক্ত হয় কলম্বো৷ প্রাণ হারান ২৫৮ জন মানুষ৷ তারপরেই গোটা দেশ জুড়ে জারি হয় জরুরি অবস্থা৷

এই ইস্যুতে একটি বিবৃতি জারি করে শ্রীলঙ্কা সরকার৷ বলা হয় মানুষের নিরাপত্তার স্বার্থে জরুরি অবস্থার সময়সীমা বাড়ানো হল৷ এরফলে সন্দেহজনক গতিবিধি নজরে এলেই সঙ্গে সঙ্গে গ্রেফতার করতে পারবে সেনা৷ শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী রণিলা বিক্রমাসিঙ্ঘে জানিয়েছিলেন, আবারও হতে পারে হামলা।

তিনি বলেন, আইএস-এর আরও হামলার আশঙ্কা রয়েছে। তিনি বলেন, শ্রীলঙ্কার ইস্টারে বোমা হামলাকারীদের অধিকাংশের নেটওয়ার্ক গুঁড়িয়ে দিতে সক্ষম হয়েছে তদন্তকারীরা।

আরও পড়ুন : এভারেস্ট না সপ্তমীর সন্ধ্যায় কলেজ স্কোয়্যারের লাইন, বোঝা দায়

প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহে জানিয়েছেন, আত্মঘাতী বোমা হামলার সঙ্গে জড়িত জঙ্গিদের সঙ্গে যাদের সম্পর্ক রয়েছে তাদের ধরতে সক্ষম হয়েছে সরকার। এই হামলার পর নতুন সন্ত্রাসবিরোধী আইন চালু করার পরিকল্পনা চলছে শ্রীলঙ্কায়।

এদিকে পুলিশ বলছে, ২১ এপ্রিলের বোমা হামলাকারী ও ষড়যন্ত্রকারীদের প্রায় ৪০ মিলিয়ন ডলারের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।

সেদেশের প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের এক অডিও বার্তায় ভারপ্রাপ্ত পুলিশ প্রধান চন্দনা বিক্রমারত্নে বলেন, হামলার সঙ্গে জড়িত প্রায় সব সন্দেহভাজন হামলাকারী এবং ষড়যন্ত্রকারী অভিযানে নিহত অথবা গ্রেফতার হয়েছেন।

আরও পড়ুন : গণনার দিন হিংসা ছড়াতে পারে, রাজ্যকে সতর্কবার্তা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের

এতে তিনি বলেন, ষড়যন্ত্রকারীদের মধ্যে অন্তত দু’জন বোমা বিশেষজ্ঞ ছিলেন। যারা অভিযানে মারা গিয়েছেন। পুলিশ প্রধান বলেন, তারা আরও হামলা চালানোর জন্য বিস্ফোরক মজুত করেছিল, সেগুলো বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।

২১ এপ্রিল শ্রীলঙ্কার কয়েকটি চার্চ ও হোটেলে ধারাবাহিক আত্মঘাতী বোমা হামলায় ৪২ বিদেশি নাগরিকসহ ২৫০ জন নিহত হয়েছেন।