কলম্বো: সেই ভয়াবহ রক্তাক্ত রবিবার পেরিয়ে ফের একটা সাপ্তাহিক ছুটির প্রার্থনার দিন৷ আজও রবিবার৷ তবে শ্রীলঙ্কার খ্রিষ্টানদের জন্য কোনও গির্জার দরজা খোলা নেই৷ নতুন করে হামলার আশঙ্কায় জারি হয়েছে জরুরি সতর্কতা৷ পরিস্থিতি অনুযায়ী টিভিতে সম্প্রচারিত প্রভু যীশুর প্রার্থনায় যোগ দিলেন দ্বীপরাষ্ট্রের খ্রিষ্টান সম্প্রদায়৷ গত রবিবার ইস্টার সানডের দিনে পরপর ৮টি বিস্ফোরণে দুশোর বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে৷

এদিন প্রেসিডেন্ট মৈত্রিপালা সিরিসেনা, প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংঘে ও বিরোধী নেতা মহিন্দা রাজাপাকসে এই প্রার্থনায় যোগ দেন। সম্প্রতি যে রাজনৈতিক সঙ্কট পার করেছে শ্রীলঙ্কা৷ তারপর পর এই তিন নেতার একসঙ্গে আসা এক অভিনব দৃষ্টান্ত৷ গত বছর প্রেসিডেন্ট সিরিসেনা জোর করে প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহেকে সরিয়ে নিজের পছন্দের প্রার্থী তথা প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট মাহিন্দা রাজাপাকসেকে গদিতে বসানোর চেষ্টা করেন৷ সুপ্রিম কোর্টের হস্তক্ষেপে বিক্রমাসিংঘে-কে ফের প্রধানমন্ত্রী পদে পুনর্বহাল করা হয়।

গত রবিবার ধারাবাহিক বিস্ফোরণের পর সরকার জানিয়েছিল, নিরপত্তার কারণে বন্ধ থাকবে খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের উপাসনা কেন্দ্রগুলি৷ তার আগে শুক্রবার বন্ধ রাখ হয় মসজিদ৷ হামলার এক সপ্তাহ পরে এদিন গির্জা বন্ধ থাকায় টেলিভিশনে বাইবেল পাঠ করেন কলম্বোর আর্চবিশপ কার্ডিনাল ম্যালকম রঞ্জিত। সেই সম্প্রচার দেখে মন্ত্রপাঠ করেন খ্রিষ্টানরা৷

এদিন ধর্মীয় উপদেশ দেওয়ার মাঝে আর্চ বিশপ জানান, “গত রবিবার যে মহা ধ্বংসযজ্ঞ হয়েছে তার মধ্য দিয়ে আমাদের হৃদয়কে পরীক্ষা করার সময় এসেছে। ঈশ্বর কি সত্যিই আমাদের ভালোবাসেন, সেই কথা মানুষের মনে জেগে ওঠার সময় এসেছে।”